শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করলেন তৃণমূলের প্রাক্তন সাংসদ তাপস পাল

নীল বনিক, আমাদের ভারত, কলকাতা, ১৮ ফেব্রুয়ারি: প্রয়াত হলেন প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদতাপস পাল। মুম্বইয়ের একটি বেসরকারী হাসপাতালে মঙ্গলবার ভোররাতে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন কৃষ্ণনগরের প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ ও জনপ্রিয় অভিনেতা। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬১ বছর।

২৮ জানুয়ারি তিনি মুম্বই গিয়েছিলেন। সেখান থেকে পয়লা ফেব্রুয়ারি মেয়ে সোহিনী পালের সঙ্গে মার্কিং যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার কথা ছিল তাঁর। বিমান ধরার আগেই বুকে ব্যাথা অনুভব করেন প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ। সাথেসাথে তাকে ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। রাখা হয় ভেন্টিলেশনে। মাঝে চিকিৎসায় সামান্য সাড়া দিলেও সোমবার থেকে অবস্থার অবনতি শুরু হয়। মঙ্গলবার ভোর ৩টে ৩৬ মিনিটে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।

তার মৃত্যুতে শোকস্তদ্ধ শিল্পী মহল। ১৯৫৮ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর হুগলির চন্দননগরে জন্ম। ছোটবেলা থেকেই অভিনয়ের প্রতি আগ্রহ। কলেজে পড়াকালীন নজরে পড়েন পরিচালক তরুণ মজুমদারের। মাত্র ২২ বছর বয়সে মুক্তি পায় তার প্রথম ছবি দাদার কীর্তি। এরপর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাপস পালকে। একের পর এক হিট ছবি উপহার দিয়েছেন দর্শকদের। উল্লেখযোগ্য ছবিগুলির মধ্যে সাহেব, অনুরাগের ছোঁয়া, পারাবত প্রিয়া, ভালোবাসা ভালোবসা। সাহেব ছবির জন্য ফিল্ম ফেয়ার অ্যাওয়ার্ড পান ১৯৮১ সালে। বাংলার পাশাপাশি অভিনয় করেছেন হিন্দি ছবিতেও অভিনয় করেছেন। মাধুরী দীক্ষিতের বিপরীতে অভিনয় করেছেন অবোধ ছবিতে।

সিনেমার পাশাপাশি রাজনীতি নামেন তাপস পাল। প্রথমে বিধানসভায় দাড়িয়ে কলকাতার আলিপুর কেন্দ্র থেকে বিধায়ক নির্বাচিত হন। এরপরেই কৃষ্ণনগর লোকসভা থেকে লোকসভার সাংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন। যদিও রোজভ্যালি কান্ডে সিবিআইয়ের হাতে গ্রেফতার হবার পর তৃণমূলেই তার গোহনযোগ্যতা কমে যায়। সদ্য সমাপ্ত লোকসভা ভোটে তাকে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী করেনি। তারপর থেকেই তাপস পাল সক্রীয় রাজনীতিতে থেকে দূরেই ছিলেন।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here