চারদিন পর সেপটিক ট্যাঙ্ক থেকে উদ্ধার চার মাসের শিশুকন্যার দেহ, গোয়ালপোখরের বোচাগাড়ি গ্রামে চাঞ্চল্য

স্বরূপ দত্ত, আমাদের ভারত, উত্তর দিনাজপুর, ১৫ জানুয়ারি: চারদিন ধরে নিখোঁজ থাকা চার মাসের শিশুকন্যার মৃতদেহ উদ্ধার হল সেপটিক ট্যাঙ্ক থেকে। ঢাকনা বন্ধ ট্যাঙ্কে কিভাবে গেলো ওই শিশু? যা নিয়ে রহস্য দানা বেঁধেছে। উত্তর দিনাজপুরের গোয়ালপোখরের বোচাগাড়ি গ্রামের ঘটনা। টাঙ্কে ফেলে ওই শিশু কন্যাকে মেরে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

নিখোঁজ হওয়ার চারদিন পরে বাড়ির শৌচালয়ের সেপটিক ট্যাঙ্ক থেকে চার মাসের এক শিশু কন্যার মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে উত্তর দিনাজপুর জেলার গোয়ালপোখর থানার গতি গ্রাম পঞ্চায়েতের বোচাগাড়ি এলাকায়। সদ্যোজাত শিশু কন্যার পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে হঠাৎ নিখোঁজ হয়ে যায় চার মাসের শিশু কন্যা। বাড়ির লোকজন অনেক খোঁজাখুঁজির পরেও পাওয়া যায়নি তাকে। এরপর বাড়ির শৌচালয় থেকে পচা গন্ধ পেয়ে সন্দেহ হওয়ায়, ট্যাঙ্কের ভিতর থেকে ওই শিশু কন্যার দেহ উদ্ধার হয়। এই ঘটনায় কান্নায় ভেঙে পড়ে পরিবারের সদস্যরা।

পরিবারের দাবি, বাড়ির সেপটিক ট্যাঙ্কের ঢাকনা বন্ধই থাকে। আবার এত ছোট শিশু, সে হাঁটাও শেখেনি। তাই কেউ ওই শিশু কন্যাটিকে নিয়ে গিয়ে ট্যাঙ্কির মধ্যে ফেলে দিয়েছে বলে তাদের অভিযোগ। আর এতেই রহস্য দানা বেঁধেছে। এদিকে খবর পেয়ে গোয়ালপোখর থানার পুলিশ গিয়ে শিশুর মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। মৃত শিশুর পরিবারের তরফে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। যদিও কি কারণে, কে বা কারা একাজ করেছে তা এখনো স্পষ্ট না হলেও শিশুটিকে টাঙ্কে ফেলে খুন করা হয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছেন শিশুর পরিবার। তবে ঘটনার রহস্য উদ্ঘাটনে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here