গণধর্ষণের পর খুনের করে দেহ গাছে টাঙিয়ে দিল ৭ নাবালক

13

আমাদের ভারত,২মার্চ:নিজের বন্ধুদেরই লালসার বলি হল ১২ বছরের কিশোরী। ঘটনা ঘটেছে অসমের বিশ্বনাথ গ্রামে। ওই নাবালিকাকে গণধর্ষণের পর খুন করে গাছে টাঙিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল ওই কিশোরীর সাত নাবালক বন্ধুর বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গণধর্ষণে অভিযুক্ত ৭ জনই দশম শ্রেণীর বোর্ডের পরীক্ষা দিয়েছে বলে জানা গেছে। নিহত কিশোরীর পরিবার জানিয়েছে অভিযুক্তরা প্রত্যেকেই তাদের গ্রামের বাসিন্দা। শুক্রবার রাতে নৈশভোজের নেমন্তন্ন করে মেয়েটিকে ডেকে নিয়ে গিয়েছিল তারা। এরপর জোর করে তাকে কাছের জঙ্গলে নিয়ে গিয়ে একের পর এক ধর্ষণ করে তাকে। ধর্ষণ করে খান্ত হয়নি তারা। এরপর তাকে খুন করে তারা। সম্ভবত বিষয়টিকে আত্মহত্যা দেখাতে দেহটিকে গাছে টাঙিয়ে দেয় তারা।

কিন্তু শুক্রবার রাতে মেয়ে বাড়ি না ফেরায় বাড়ির লোকজন খোঁজ করতে শুরু করে। গ্রামের এই ছেলেগুলোকেও খুঁজছিলেন তারা। জঙ্গলের কাছে অভিযুক্তদের মধ্যে দুজনকে দেখতে পান মেয়েটির কাকা। তাকে দেখেই ওই দুজন পালিয়ে যেতে চেষ্টা করে। এরপরেই জঙ্গলের ভেতর খোঁজ করতে শুরু করলে মেয়েটির ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়।

অভিযুক্তদের মৃত্যুদণ্ডের দাবি জানিয়েছে কিশোরীর পরিবার। দেহটি ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। সাত নাবালকের বিরুদ্ধে দায়ের হয়েছে গণধর্ষণ ও খুনের মামলা।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here