নিয়মের বাড়বাড়ন্তে স্বাধীন ভাবে কাজের সুযোগ নেই, পাকিস্তানে পরিষেবা বন্ধ করার হুমকি গুগল, টুইটার ফেইসবুকের

আমাদের ভারত, ২১ নভেম্বর: নানা বিধি নিষেধ আরোপ করে তাদের স্বাধীন ভাবে কাজ করতে দেওয়া হচ্ছে না। সেই কারণেই পরিষেবা বন্ধ করে পাকিস্তান ছেড়ে চলে যাওয়ার হুমকি দিল গুগল ফেসবুক টুইটারের মতো সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটগুলি।

পাকিস্তানে ইমরান খান ক্ষমতায় আসার পর থেকেই একের পর এক নিয়মের বোঝা চাপানো হয়েছে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটের উপর। তার ফলে তাদের নিজস্ব নিয়মবিধিতে অসুবিধা হচ্ছে। এমনকি পাক সরকারের বিধিনিষেধে ব্যাক্তি স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ হচ্ছে বলেও অভিযোগ তাদের।

ইসলাম বিরোধী কোন পোস্টটি রাখা যাবে না। মানুষের খোলামেলা আলোচনার পথও বন্ধ। এই সব নিয়মবিধি মানা হবে না বলে আগেই ইমরান সরকারকে সতর্ক করেছিল সাইটগুলি। এবার ফেসবুক টুইটার গুগল সহ কয়েকটি সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট গুলি প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দেয়। সেখানে বলা হয় পাক সরকারের জারি করা বিধিনিষেধ সংশোধন করতে হবে তা না হলে পরিষেবা বন্ধ করতে তারা বাধ্য হবেন।

ইমরান সরকার যে নিয়ম লাগু করেছে, তাতে একাধিক নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। বলা হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া কোম্পানিগুলিকে পাকিস্তানি পরিষেবা দিতে হলে ইসলামাবাদে অফিস থাকতে হবে।ইসলামবিরোধী কোন পোস্ট বা ধর্মীয় পোস্ট শেয়ার করা চলবেনা। সরকার যদি চায় তো যে কোন পোস্ট তুলে নিতে পারে। সাইটগুলিতে যে সমস্ত পোস্টে পাক সরকার অনুমতি দেবে একমাত্র সেগুলোই সামনে আনা যাবে।প্রয়োজনীয় ডেটা স্টোর করে রাখতে হবে। কর্তৃপক্ষের মনে হলে তথ্য মুছে ফেলতেও হতে পারে।
এইবিধি-নিষেধের প্রেক্ষিতেই ডিজিটাল কোম্পানিগুলি পরিষেবা বন্ধ করার হুমকি দিয়েছে। তাদের দাবি পাক সরকারের এই বিধির ফলে সাধারণ মানুষের কাছে পরিষেবা পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। নতুন নির্দেশিকা কারণে তাদের নিজস্ব কিছু বিধি নিয়ম মানা যাচ্ছে না। ব্যবহারকারীদের সুরক্ষাও নিশ্চিত নয়। পাক সরকার চাইলেই ব্যক্তিগত তথ্যে নজরদারি করতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here