“সংখ্যালঘুদের তোষণ করেন আপনি, নিজামুদ্দিনের প্রসঙ্গে আপনার উত্তর গ্রহণ যোগ্য নয়” মমতাকে বিস্ফোরক চিঠি রাজ্যপালের

আমাদের ভারত, ২৪ এপ্রিল :লকডাউনের মধ্যেও রাজ্য- রাজ্যপাল সংঘাত চলছিলই। রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকর ও মুখ্যমন্ত্রীর মধ্যে টুইট, পাল্টা টুইটেরপর চিঠি ও পাল্টা চিঠির আবহে সরগরম হয়ে ওঠে রাজ্যের রাজনীতি। এরমধ্যে মুখ্যমন্ত্রীর পাঁচ পাতার চিঠির উত্তরে রাজ্যপালের তরফে দুদিনে দুটি চিঠি যায়। দ্বিতীয় চিঠিতে করোনা মোকাবিলায় রাজ্য সরকারের ব্যর্থতা, সংখ্যালঘু তোষণ, নিজামুদ্দিন নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর অগ্রহনযোগ্য উত্তর , সিএএ-র মত একেবারে ৩৭টি পয়েন্ট উল্লেখিত বিস্ফোরক চিঠি পৌঁছে যায় মুখ্যমন্ত্রীর কাছে। আর তাতেই আরও সরগরম হয়ে উঠছে রাজ্যের রাজনীতি।

রাজ্যপালের তরফেশুক্রবারে পাঠানো দ্বিতীয় চিঠিতে করোনা মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রীকে সরাসরি ব্যর্থ বলেও উল্লেখ করেন রাজ্যপাল। দীর্ঘ চিঠিতে ৩৭টি পয়েন্ট উল্লেখ করেছেন রাজ্যপাল। করোনা প্রসঙ্গ ছাড়াও রাজ্যের আগে ঘটে যাওয়া একাধিক প্রসঙ্গ তুলে ধরেছেন এ রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান।

রাজ্যপাল তাঁর চিঠিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উদ্দেশ্যে লিখেছেন, “করোনা মোকাবেলায় আপনি ব্যর্থ। কৌশলে দৃষ্টি ঘোরাচ্ছেন আপনি। সংখ্যালঘুদের তোষণ করছেন আপনি। নিজামুদ্দিনের ঘটনা নিয়ে আপনাকে প্রশ্ন করা হলে আপনি বলেন এই প্রশ্ন সাম্প্রদায়িক প্রশ্ন, যা আমার কাছে মোটেই গ্রহণযোগ্য নয়। আমি বলব আপনি আপনার অন্তরাত্মার কথা শুনুন। আপনি আইনের ঊর্ধ্বে নন। সুপ্রিম কোর্টও তাই বলে। আপনি সংবিধান অবমাননা করেছেন।

রাজ্যপাল আরও লিখেছেন,” আপনি তথ্য লুকাচ্ছেন। কেন্দ্রের প্রতিনিধি দল এই রাজ্যে কাজ করতে পারছেন না। আপনি নিজের চিঠিতে আম্বেদকরের কথা বললেও সংবিধানকে আপনি অবজ্ঞা করছেন। এর থেকে বড় পরিহাস আর হয় না। আপনার ব্যর্থতা লুকাতে চিঠিতে আপনি অজুহাত দিয়েছেন। মাইক, ঝাঁটা হাতে মুখ্যমন্ত্রীকে মানায় না। নাটক ছেড়ে কাজ করুন।

একইসঙ্গে রাজ্যপাল তাকে মনে করিয়েছেন, রাজভবনে তার আরও একটি বন্ধু আছেন। মানুষের স্বার্থে তিনি কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করতে চান।

এই চিঠিতে রাজ্যপাল সিএএ প্রসঙ্গ তুলেছেন।
লিখেছেন এই বাংলা বিধানচন্দ্র রায়কে দেখেছে। ওনার মত মুখ্যমন্ত্রী হতে পারতেন। যে রাজ্যে কোনো রেশন কেলেঙ্কারি নেই। যে রাজ্যের জনতার টাকা লুট হয় না।

মুখ্যমন্ত্রীর চিঠির উত্তরে এই নিয়ে দুটি চিঠি পাঠিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। বৃহস্পতিবার যেটি প্রথম চিঠি তিনি পাঠিয়েছিলেন তাতে মুখ্যমন্ত্রীকে সাংবিধানিকভাবে ব্যর্থ বলে উল্লেখ করেছিলেন তিনি। দ্বিতীয় চিঠিটি তার চেয়েও বড় বিস্ফোরণ বলে মত রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here