হাড়োয়ায় গৃহবধূ গণধর্ষণকাণ্ডে নয়া মোড়, পুলিশ এবং মহিলার বক্তব্যে ফারাক

আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগণা, ২৫ জুলাই: হাড়োয়ায় যে মহিলাকে ধর্ষণ করা হয়েছিল বলে অভিযোগ, তাঁর মেডিকেল রিপোর্টে ধর্ষণের কোনও প্রমাণ মেলেনি বলে শুক্রবার চাঞ্চল্যকর দাবি করল রাজ্য পুলিশ। শুক্রবার রাজ্য পুলিশের নিজস্ব ফেসবুকপেজ থেকে তা প্রকাশিত হয়। ওই ফেসবুক পোস্টে রাজ্য পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, ‘বসিরহাট পুলিশ জেলার হাড়োয়া থানা এলাকায় একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে সকাল থেকে গুজব ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তারপর ভদ্রমহিলাকে মেডিকেল পরীক্ষা করানাে হয়েছে, তার পিঠে আঁচড়ের দাগ ছাড়া অন্য কোনও আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি৷ মেডিকেল রিপাের্ট অনুযায়ী আপাত যৌন নির্যাতনের কোনও চিহ্ন নেই।’
পুলিশের পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়েছে, ‘তিনি তাঁর মৌখিক বিবৃতিতেও যৌন নিপীড়নের কথা উল্লেখ করেননি। এটা সুস্পষ্ট যে এটি গণধর্ষণের ঘটনা নয়। পুলিশ আসল ঘটনাটি উদঘাটন করছে। দয়া করে গুজবে কান দেবেন না, পুলিশের সঙ্গে সহযােগিতা করুন। ‘

অথচ যে মহিলা ধর্ষিত হয়েছেন বলে অভিযোগ তিনি নিজে সংবাদমাধ্যমে বলছেন, তাঁকে ধর্ষণ করা হয়েছে। সেখানে ৮ জন ছিল, তাদের মধ্যে পাঁচজনকে চিনতে পেরেছেন। তিনি আরও বলেন, পুলিশ কোনও সহযোগিতা করছে আমাকে। উপরন্তু শুক্রবার রাত থেকে বাড়ির আশপাশে বোমা ফেলছে আমাদের ভয় দেখানো হচ্ছে। ওই নির্যাতিতা দোষীদের কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন। এমনকি তাদেরকে ফাঁসি দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন ওই নির্যাতিতা মহিলা। তাহলে কি তারা প্রভাবশালী কেউ? নাকি কোনও রাজনৈতিক দলের কেউ। পুলিশ কেন ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছেন। এমন অনেক প্রশ্ন উঠেছে রাজনৈতিক মহলে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here