শীতে করোনার আরও বড় ঢেউ আসতে পারে, বাড়িতেই উৎসব পালন করুন, সতর্কবার্তা কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

আমাদের ভারত, ১১ অক্টোবর: উৎসবের মোরসুম দরজায় কড়া নাড়ছে। আর সেই জন্যেই কেনাকাটা করতে প্রচুর মানুষ বাইরে বের হয়েছেন। এর ফলেই উৎসবের মরসুমে সংক্রমণ আরো ছড়ানোর সম্ভাবনা রয়েছে বলে সতর্ক করেছেন বিশেষজ্ঞরা। এবার একই সতর্ক বার্তা দিলেন এবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডক্টর হর্ষবর্ধন। করোনা নিয়ম না ভেঙে দেশবাসীকে উৎসব পালন করার পরামর্শ দিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। তার বক্তব্য কোনো ধর্ম বা ভগবান বলে না বাড়ি থেকে বাইরে বেরিয়ে জাঁকজমকের সঙ্গে উৎসব পালন করতে। তাই বাইরে ভিড় না করে বাড়িতে বসে পরিবারের সঙ্গেই উৎসব পালনের কথা বলেছেন তিনি। একই সঙ্গে সতর্ক করেছেন করোনারি দ্বিতীয় ঢেউ আসতে পারে শীতের সময়।

সোশ্যাল মিডিয়ায় সাধারন মানুষের সঙ্গে কথা বলার সময় হর্ষবর্ধন বলেন, ধর্মে বিশ্বাস রয়েছে সেটা দেখানোর জন্য প্রচুর সংখ্যায় বাইরে বেরিয়ে জমায়েত করার কোন প্রয়োজন নেই। যদি আমরা সেটা করি তাহলে আরো বেশি করে নিজেদের বিপদ ডেকে আনবো। ভগবান কৃষ্ণ বলেছেন, নিজের লক্ষ্যে মনোনিবেশ করো। আমাদের লক্ষ্য এই ভাইরাসকে শেষ করে মানবতাকে বাঁচানো। এটাই আমাদের ধর্ম। এটাই গোটা বিশ্বের ধর্ম।

তিনি আরো বলেন কঠিন পরিস্থিতিতে পড়ে অনেক সিদ্ধান্ত নিতে হয়। কোনো ধর্ম বা ভগবান বলে না বাইরে বেরিয়ে জাঁকজমক করে উৎসব করতে হবে।

সামনের শীতে করোনা সংক্রমনের আরও একটা বড় ঢেউ আসতে পারে বলেও সতর্ক করেছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন ঠান্ডা আবহাওয়ায় কম আদ্রতায় এই ভাইরাস অনেক বেশি সক্রিয় থাকে তাই শীতের মৌসুমে এই ভাইরাস আরো বেশি সক্রিয় হয়ে উঠতে পারে। তাই এই সময়ে সংক্রমনের মাত্রা আরও বেড়ে যেতে পারে। ব্রিটেনে শীতকালে সংক্রমণ বাড়তে দেখা গিয়েছিল বলেই মনে করিয়ে দিয়েছেন তিনি।

গোটা দেশ ইতিমধ্যেই উৎসব পালনের জন্য তৈরি হচ্ছে তাই সতর্ক করে তিনি বলেন, উৎসব পালন করতে গিয়ে জীবনের ঝুঁকি নেওয়া উচিত না। করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে বলতে গিয়ে তিনি বলেন, দেশে কারা ভাইরাসের কতটা সংস্পর্শে আসছেন, কাদের মধ্যে সংক্রমণের ঝুঁকি বেশি,কোন বয়সের মানুষের ভ্যাকসিন আগে দরকার এই সব বিষয়ের উপর নির্ভর করেই ভ্যাকসিনের অগ্রাধিকার ঠিক করা হচ্ছে। তবে একটি মাত্র কোম্পানির পক্ষে গোটা দেশের ভ্যাকসিনের চাহিদা পূরণ করা কখনোই সম্ভব নয়। কেন্দ্র সরকার অনেকগুলি ভ্যাকসিন কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছে। সবাইকেই যাতে ভ্যাক্সিন দেওয়া যায় সেই চেষ্টাই করছে সরকার।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here