বিজেপির নবান্ন অভিযানকে ঘিরে উত্তেজনা ধূলাগড় টোল প্লাজায়

আমাদের ভারত, হাওড়া, ৮ অক্টোবর: কোনও মতেই নবান্ন অভিযানে যাওয়া বিজেপি কর্মীদের টোল প্লাজা পার না হতে দেওয়ার পুলিশের সিদ্ধান্তকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল ১৬ নং জাতীয় সড়কের ধূলাগড়ে। বিজেপি কর্মীদের রাস্তা অবরোধ পুলিশের লাঠিচার্জ সবমিলিয়ে উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হওয়ার পর অবশেষে কিছু শর্ত মেনে বিজেপি কর্মীদের টোল প্লাজা পার হওয়ার অনুমতি দেয় পুলিশ। সকাল থেকে চলা পরিস্থিতি বেলায় স্বাভাবিক হয়।

বৃহস্পতিবার ছিল ভারতীয় জনতা যুব মোর্চার নবান্ন অভিযান কর্মসূচি। সকাল থেকেই জাতীয় সড়কের মোড়ে মোড়ে পুলিশ মোতায়েন ছাড়াও ধূলাগড় টোল প্লাজায় ব্যাপক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছিল। বিজেপি কর্মীদের টোল প্লাজা পার হওয়া আটকাতে এই এলাকাকে কার্যত দুর্গ বানিয়ে ফেলেছিল পুলিশ। পুলিশের পদস্থ আধিকারিকরা ছাড়াও বিভিন্ন থানা থেকে পুলিশ নিয়ে আসা হয়েছিল। সঙ্গে ছিল র‍্যাফ এবং কমব্যাট ফোর্স।

এদিন কলকাতা অভিমুখে যাওয়ার সময় টোল প্লাজার আগে ব্যারিকেড করে রাস্তা ভাগ করে পুলিশ নাকা চেকিং শুরু করেছিল। প্রয়োজন ছাড়া কাউকেই টোল প্লাজা পার হওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়নি। অন্যদিকে, এদিন সকাল থেকেই বিভিন্ন যানবাহন করে যাওয়া বিজেপি কর্মীদের টোল প্লাজার মুখে আটকে দেয় পুলিশ। গাড়ি ঘুরিয়ে দেওয়া হয়‌। একটা সময় বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মী গাড়ি থেকে নেমে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। পরে পুলিশ মৃদু লাঠিচার্জ করে তাদের হঠিয়ে দেয়।
অন্যদিকে একের পর এক গাড়ি পুলিশ ঘুরিয়ে দেওয়ায় ধৈর্যের বাঁধ ভাঙ্গে বিজেপি কর্মীদের। তারা জাতীয় সড়কে কোলাঘাট মুখী লেনে রাস্তায় বসে শুয়ে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। পুলিশের সঙ্গে তর্ক বিতর্কে জড়িয়ে পড়ে বিজেপি কর্মীরা। বিজেপি কর্মীদের রাস্তা অবরোধে ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয় টোল প্লাজায়। একসময় বিক্ষোভকারীদের উগ্র মূর্তি দেখে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে সরে যায়।

প্রায় ঘন্টাখানেক এই বিক্ষোভ চলার পর পুরুলিয়ার সাংসদ জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। তিনি বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন। পরে পুলিশ আধিকারিকদের সঙ্গে কথা বলে কয়েকটি শর্ত মেনে টোল প্লাজা পার হওয়ার অনুমতি আদায় করেন। এর পরেই বিভিন্ন জায়গায় আটকে থাকা বিজেপি কর্মীদের নিয়ে গাড়ি টোলপ্লাজা পার হওয়া শুরু করে এবং রাস্তা অবরোধ মুক্ত হয়।

অপরদিকে এদিন একটি বাইক মিছিল নিয়ে নবান্ন অভিমুখে যাত্রা করেন বিজেপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য জয় বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও শেষ পর্যন্ত এই বাইক মিছিল নবান্ন পর্যন্ত পৌঁছতে পারেনি। তার আগেই পুলিশের বাধায় মাঝপথেই থমকে যায় মিছিল। এদিন বিজেপির এই কর্মসূচিতে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির হাওড়া গ্রামীণ জেলা সভাপতি শিব শঙ্কর বেজ, সহ-সভাপতি রমেশ সাধুখাঁ, সাধারণ সম্পাদক প্রত্যুষ মন্ডল সহ একাধিক বিজেপি নেতা কর্মীরা।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here