প্রমাণিত ইসলামে হিজাব বাধ্যতামূলক নয়! মুসলিম দেশেও হিজাবের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, সুপ্রিমকোর্টে সাওয়াল কর্ণাটক সরকারের

আমাদের ভারত, ২১ সেপ্টেম্বর: বিশ্বের অন্যান্য মুসলিম দেশগুলোতেও হিজাবের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ চলছে। আর এর থেকেই প্রমাণিত হয় ইসলামে হিজাব বাধ্যতামূলক নয়। শিক্ষাঙ্গনে হিজাবে নিষেধাজ্ঞার দাবিতে সুপ্রিমকোর্টে এই তথ্য তুলে ধরে জোর সাওয়াল করল কর্ণাটক সরকার।

মঙ্গলবার শীর্ষ আদালতে কর্ণাটক সরকারের পক্ষে সওয়াল করেন সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহেতা। তিনি বলেন, বিশ্বের এমন একাধিক দেশ আছে যেগুলি সাংবিধানিকভাবে ইসলামিক দেশ। কিন্তু আজ সেখানেও হিজাবের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ হচ্ছে। শীর্ষ আদালতের দুই বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ তুষার মেহেতাকে প্রশ্ন করে কোন দেশের কথা তিনি বলছেন। জবাবে কর্ণাটক সরকার জানায় ইরানে বিক্ষোভ হচ্ছে হিজাবের বিরুদ্ধে। সুতরাং হিজাব অত্যাবশ্যক নয়।

কোরানে উল্লেখ থাকা মানেই সেটা অত্যাবশ্যক হতে পারে না। হতে পারে এটা অনুমোদনযোগ্য বা আদর্শ আচরণের মধ্যে পড়ে। তুষার মেহেতা জানিয়ে দিয়েছেন, কর্ণাটক সরকার শিক্ষা ক্ষেত্রে যে কোনো ধর্মীয় পোশাক নিষিদ্ধ করার নির্দেশ দিয়েছে। বলা হয়েছে কোনো রকম ধর্মীয় পোশাক পরে আসা যাবে না। শুধু হিজাব নয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিষিদ্ধ করা হয়েছে গেরুয়া উত্তরীয়।

কর্ণাটক সরকারের পাল্টায় মামলাকারীদের পক্ষে সওয়াল করেন দুষ্মন্ত দাভে। তিনি বলেন, এটা কখনোই সার্বিক পরিস্থিতি নয়। এটা ইচ্ছাকৃতভাবে সংখ্যালঘুদের কোণঠাসা করে দেওয়ার চেষ্টা মাত্র।

কর্ণাটক সরকার গত ফেব্রুয়ারিতে নির্দেশিকা জারি করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হিজাব পরা নিষিদ্ধ করে। তারপর থেকে সে রাজ্যে হিজাব ইস্যুতে বিক্ষোভ শুরু হয়। বিশেষ করে উদুপি জেলায় বিক্ষোভের জেরে স্কুল কলেজগুলো রীতিমতো রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে। বিক্ষোভের জেরে বেশ কয়েকদিন স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখতে হয় কর্ণাটক সরকারকে। কর্ণাটক হাইকোর্টে আর্জি জানানো হয় যে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হোক। কিন্তু হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা বহাল রেখেছে।

সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে বেশকিছু মামলা হয় সুপ্রিম কোর্টে। তারই শুনানিতে এদিন হিজাব নিষিদ্ধ করার দাবিতে সাওয়াল করেছে কর্ণাটক সরকার। একই সঙ্গে তারা জানিয়েছে শুধু হিজাব নয় নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকছে যে কোনো ধরনের ধর্মীয় পোশাক।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here