১০ হাজার যুবতী এবং মহিলার হাতে আত্মরক্ষার অস্ত্র তুলে দিচ্ছে হিন্দু সংহতি

আমাদের ভারত, ২৩ সেপ্টেম্বর: হিন্দু সংহতির মহিলা শাখার পক্ষ থেকে মেয়েদের আত্মরক্ষার প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। বিভিন্ন এলাকায় এই প্রশিক্ষণ ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে। প্রশিক্ষণের পাশাপাশি আত্মরক্ষার জন্য তাদের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি অস্ত্র। শুধু অস্ত্র তুলে দেওয়াই নয়, হাতে-কলমে তার ব্যবহারও শিখিয়ে দেওয়া হচ্ছে। তাদের লক্ষ্য রাজ্যে দশ হাজার নারীর হাতে এই গুরুত্বপূর্ণ অস্ত্রটি তুলে দেওয়া হবে। প্রয়োজনে মেয়েরা এই অস্ত্র নিজেও কিনে নিতে পারবেন।

হাওড়া জেলার উলুবেড়িয়া উত্তর বিধানসভা এলাকার মুক্তির চকে গতকাল মঙ্গলবার নারী সংহতির সভায় মেয়েদের হাতে এই অস্ত্র তুলে দেওয়া হয়। তবে এই অস্ত্র কোনো নিষিদ্ধ অস্ত্র নয়, এটা একটি আইন সিদ্ধ সাধারণ অস্ত্র। শুধু তুলে দেওয়াই নয়, অস্ত্র কী করে ব্যবহার করতে হবে হবে তাও শেখানো হয়। তবে, অস্ত্রটি আর কিছুই নয় লঙ্কার গুঁড়ো। পথেঘাটে আত্মরক্ষার জন্য মেয়েদের হাতে তুলে দেওয়া হয় লঙ্কার গুঁড়োর প্যাকেট।

বাইরে বেরোনোর সময় এই লঙ্কারগুঁড়োর প্যাকেট তাদের সঙ্গে রাখতে বলা হয় এবং কোনও বিপদের মুখে পড়লে সেই আক্রমণকারীর চোখেমুখে অতর্কিতে কিভাবে ছিটিয়ে দিয়ে আত্মরক্ষা করতে হবে তা শিখিয়ে দেওয়া হয়। গতকালের এই বিশেষ সভায় উপস্থিত ছিলেন নারী সংহতির অন্যতম কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদিকা সোমা হালদার, উলুবেড়িয়া উত্তর বিধানসভা এলাকার নারী সংহতির অন্যতম নেত্রী রিঙ্কু পাঁজা সহ অন্যান্যরা।

হিন্দু সংহতির পক্ষ থেকে পশ্চিমবঙ্গের আরো বহু এলাকায় এই পেপার স্প্রে বিতরণের কর্মসূচী পালিত হবে। নারী সংহতির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদিকা সোমা হালদার জানিয়েছেন, তাঁদের প্রাথমিক লক্ষ্য হিসেবে রাজ্যে দশ হাজার হিন্দু মেয়ের হাতে এটা তুলে দেবার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এর আগে দক্ষিণ চব্বিশ পরগণার বাসন্তী বিধানসভা এলাকায় মেয়েদের হাতে এই অস্ত্র তুলে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি হিন্দু মেয়েদের মার্শাল আর্ট এর প্রশিক্ষণও দেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here