দাঁতের যন্ত্রণায় হোমিওপ্যাথি

ডাঃ প্রশান্ত কুমার ঝরিয়াৎ

আমাদের ভারত, ১৭ নভেম্বর: কথায় আছে দাঁত থাকতে মানুষ দাঁতের মর্ম বোঝে না। কথাটা একেবারে সত্যি। দাঁত যতদিন ভালো থাকে ততদিন আমরা এর যত্ন নিই না।আমাদের যে দু পাটি দাঁত আছে সেটাই আমাদের সবসময় স্মরণে থাকে না। কিন্তু অবহেলার কারনে যখন দাঁতে যন্ত্রণা শুরু হয় বা দাঁত পড়ে যাবার ফলে যখন চিবোতে কষ্ট হয় তখন আমরা বুঝতে পারি দাঁতের গুরুত্ব। কষ্ট সহ্য না করতে পেরে স্মরনাপন্ন হই দাঁতের ডাক্তারের। কিন্তু সময় থাকতেই যদি আমরা দাঁতের যত্ন নিই তাহলে দাঁতের অকালপতন অনেকটা রোধ করা যায়।

দুবেলা নিয়মিত দাঁত ব্রাশ করা উচিত। প্রতিবার খাবার পর বিশেষত মিষ্টি জাতীয়খাবার খাওয়ার পর অবশ্যই কুলকুচি করা উচিত। বাচ্চাদের চকোলেট বেশি খেতে দেবেন না, দিলেও খাবার পর মুখে জল দিয়ে কুলি করাবেন।ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার খেতে হবে, এতে দাঁত মজবুত হয়। ব্রাশ করার সময় উপরের পাটির ক্ষেত্রে উপর থেকে নীচে ব্রাশ চালনা করবেন আর, নীচের পাটির ক্ষেত্রে নীচ থেকে উপরে ব্রাশ চালনা করবেন। অযথা বেশিক্ষণ ধরে ব্রাশ মুখে দিয়ে রাখবেন না।
এখন আসুন দেখাযাক দাঁতের সমস্যায় কী কী হোমিওপ্যাথি ওষুধ আছে যা আমাদের উপশম দিতে পারে-

শীতের ঠান্ডা হাওয়া লেগে দাঁতের যন্ত্রণা হলে একোনাইট ওষুধটি প্রথমেই প্রয়োগ করতে পারলে অত্যন্ত ভালো ফল পাওয়া যায়।
যন্ত্রণা মাথার দিকে উঠে যাচ্ছে তৎসহ গরম জলে উপশম হলে আর্সেনিক ঔষধটি বিফল হবে না।
যন্ত্রণা স্নায়ুকে আক্রান্ত করেছে, মেজাজ অত্যন্ত বিরক্ত, এমতাবস্থায় ক্যামমিলা আপনাকে নিরাশ করবে না।

দাঁত কালো হয়ে গেছে, তার সাথে দাঁতের মাড়ি ফুলে উঠেছে, স্ট্যাফিসেগ্রিয়া ওষুধটি আপনাকে উপশম দিতে পারে।
যে কোনও রকম দাঁতের যন্ত্রণায় প্লান্টাগো মাদার টিংচারের বাহ্যিক প্রয়োগে সাময়িক উপশম পাওয়া যায়। দাঁতের গোড়াথেকে যন্ত্রণা চোখের দিকে চলে যাচ্ছে, এমতাবস্থায় স্পাইজেলিয়া ঔষধটি অত্যন্ত কার্যকরী।
মুখে ঠান্ডা জল দিলে যন্ত্রণার সাময়িক উপশম, কিন্তু মুখের জল গরম হলেই আবার যন্ত্রণা শুরু, এই রকম লক্ষণ পেলে কফিয়াক্রুডাম ঔষধটি প্রয়োগ করে দেখুন, আপনি নিঃশ্চয়ই আমাকে ধন্যবাদ দেবেন।
দাঁতের গোড়াথেকে ক্ষয়ে গেলে থুজা আর মাথার দিক থেকে ক্ষয়ে গেলে মার্কসল ওষুধটি কার্যকরী। এছাড়াও আরও অনেক ওষুধ আছে যেগুলো অত্যন্ত কার্যকরী কিন্তু এগুলি প্রয়োগের আগে একজন অভিজ্ঞ হোমিওপ্যাথি ডাক্তারবাবুর সঙ্গে আলোচনা করে নেওয়া আবশ্যক।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here