আমফান মোকাবিলায় প্রস্তুত হুগলী জেলা প্রশাসন

আমাদের ভারত, হুগলী, ১৯ মে: সুপার সাইক্লোন আমফান মোকাবিলায় প্রস্তুত হুগলী জেলা প্রশাসন।
বিপর্যয় মোকাবিলায় বিশেষ বাহিনীকে প্রস্তুত করা হয়েছে। কাঁচা বাড়ি থেকে সাত হাজারের বেশি মানুষকে এখনও পর্যন্ত সরানো হয়েছে। তাদের রাখা হয়েছে বিভিন্ন ত্রাণ শিবিরে। বিদ্যুৎ দপ্তর, স্বাস্থ্য দপ্তর সহ সেচ, কৃষি, দমকল, পুলিশ সহ ২৪টি দপ্তরকে এ্যালার্ট করা হয়েছে। নদীপথে পরিবহন বন্ধ রয়েছে লকডাউনের জেরে। তাও কোনো নদীতে নৌকা নামাতে নিষেধ করা হয়েছে জেলা প্রশাসনের তরফে। নদী তীরবর্তী এলাকায় মাইকিং করে সতর্ক করা হচ্ছে জন সাধারণকে। ঝড়ের সময় বাইরে থাকতে বারণ করা হচ্ছে সাধারণ মানুষকে।

জেলা প্রশাসন সুত্রে খবর, ইতিমধ্যেই পর্যাপ্ত ত্রাণ মজুত রয়েছে জেলায়। ত্রিপল, শুকনো খাবার থেকে জল সময় মত ক্ষতিগ্রস্থদের কাছে পৌঁছে দেওয়ার সব রকম ব্যবস্থা করা হয়েছে। ২৪ ঘন্টার জন্য কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে জেলা সদরে।

হুগলীর জেলা শাসক ওয়াই রত্নাকর রাও তার অফিস থেকেই সব নজরদারি করতে পারবেন। চালু করা হয়েছে হেল্প লাইন নম্বর। বিপদ হলে হেল্প লাইন নম্বরে ফোন করা যাবে। ত্রাণ সামগ্রী বিলি বন্টনে বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরের ব্যস্ততা তুঙ্গে। প্রাকৃতিক বিপর্যয় আটকানো যাবে না ঠিকই, কিন্তু ক্ষয়ক্ষতি যতটা সম্ভব আটকানো যায় সেটাই এখন লক্ষ্য হুগলী জেলা প্রশাসনের।

জেলায় ৪৭টি ত্রাণ শিবির খোলা হয়েছে। কাঁচা বাড়ি ও বিপজ্জনক বাড়ি এলাকার ১৩৩৭০ জনকে চিহ্নিত করা হয়েছে। তারমধ্যে ৭১১৫ জনকে ত্রাণ শিবিরে সরানো হয়েছে। ১৪৮ জন সিভিল ডিফেন্স ভলান্টিয়ারকে নিযুক্ত করা হয়েছে এই বিপর্যয়ে মানুষের সহায়তার জন্য। এনডিআরএফের একটি দলকে পুরশুড়া রেসকিউ ক্যাম্পে রাখা হয়েছে। দুটি স্পিড বোটকে শ্রীরামপুর ও চন্দননগরে গঙ্গায় প্রস্তুত রাখা হয়েছে। দুই হাজারের বেশি ত্রিপল বিলি করা হয়েছে ইতিমধ্যেই। জেলার হেড কোয়াটার ছাড়াও চারটি মহকুমা ও আঠেরোটি ব্লকে কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। সাইক্লোনে টেলি যোগাযোগ অক্ষুন্ন রাখতে ব্যবহার করা হবে স্যাটেলাইট ফোনও। কন্ট্রোল রুমের টোল ফ্রি নাম্বার গুলি হল- ১৮০০৩৪৫৬১৩৫ / ০৩৩-২৬৮১২৬৫২।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here