ভোপালের ভয়াবহ স্মৃতি ফিরল বিশাখাপত্তনমে! রাসায়নিক কারখানার গ্যাসে মৃত্যু শিশু সহ ৮ জনের, অসুস্থ দেড় হাজারের বেশি

আমাদের ভারত, ৭ মে: ১৯৮৪ সালের ৩ ডিসেম্বরের ভোপালের ভয়াবহ স্মৃতি এবার ফিরল বিশাখাপত্তনমে। সেদিনের ভয়াবহ গ্যাস দুর্ঘটনা কেড়ে নিয়েছিল বহু প্রাণ। এমনকি এই বিষাক্ত গ্যাসের কারণে অনেকেই পঙ্গু হয়ে গিয়েছিলেন। প্রায় ৩৬ বছর পর সেই ভয়াবহ স্মৃতি আবার ফিরে এলো বিশাখাপত্তনমে। বৃহস্পতিবার ভোররাতে বিশাখাপত্তনমের আর আর ভেঙ্কাটাপুরম গ্রামে এলজি পলিমার ইন্ডিয়া নামের একটি সংস্থার রাসায়নিক কারখানা থেকে বিষাক্ত গ্যাস নির্গত হওয়া শুরু হয়। এই দুর্ঘটনায় এখনো পর্যন্ত একটি শিশুসহ ৮ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। অসুস্থ হয়েছেন বহু।

এই ঘটনায় দেড় হাজার জন অসুস্থ হয়েছে। গুরুতর অবস্থায় ১২০ জনকে ভর্তি করা হয়েছে হাসপাতালে। মাথা ব্যাথা, বমি ভাব, শ্বাসকষ্টের উপসর্গ দেখা গেছে তাদের মধ্যে। ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বাড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে।

অনুমান করা হচ্ছে ওই বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানে এক ধরনের উদ্ভিদ থেকে নির্গত রাসায়নিক থেকে বিষাক্ত গ্যাস তৈরি হয়েছে। আর সেটা কোনওভাবে বাইরের বাতাসে মিশে যাওয়ার ফলে এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটেছে। এর ফলে অসুস্থ হয়েছেন এলাকার বহু মানুষ।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে গেছে দমকল, অ্যাম্বুলেন্স পুলিশ। এখনো চলছে উদ্ধার কাজ। এই পরিস্থিতিতে যাতে কেউ ঘর বাইরে না বেরোয় তাতে সতর্ক করার কাজ চলছে পৌরসভার তরফে।

স্থানীয় বাসিন্দারাই প্রথমে টের পান যে বিষাক্ত গ্যাস এলজি পলিমার ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেডের কারখানা থেকে বেরোচ্ছে। গ্রামের বাসিন্দারা জানান, হঠাৎ করে তাদের চোখ খুব জ্বালা করতে শুরু করে, নিঃশ্বাস প্রশ্বাসের কষ্ট হয়। এর পরেই অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তড়িঘড়ি তাদের স্থানীয় হাসপাতালে পাঠানো হয়। কমপক্ষে ১৯ জন ব্যক্তি মুহূর্তে জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে পড়ে রয়েছেন সেই ছবি সংবাদমাধ্যম এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। অসুস্থদের তুলে অ্যাম্বুলেন্সে পাঠাতে হুড়োহুড়ি লেগে যায় সেখানে। সবমিলিয়ে পরিস্থিতি যথেষ্ট উদ্বেগ জনক।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here