পণের দাবিতে শ্বাসরোধ করে বধূকে খুন, গ্রেফতার স্বামী ও শ্বশুর

সুশান্ত ঘোষ, আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগণা, ১৪ মে: পণের দাবিতে বধূকে গলায় দড়ি দিয়ে ঝুলিয়ে খুন করার অভিযোগ উঠল স্বামী সহ শ্বশুর বাড়ির লোকজনদের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে
উত্তর ২৪ পরগনা অশোকনগর থানার সেনডাঙা জয়কৃষ্ণপুর এলাকায়। মৃত বধূর নাম মাধুরী মন্ডল (২০)।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের খবর, পুমলিয়া এলাকার বাসিন্দা কঙ্কন বিশ্বাসের মেয়ে মাধুরী মন্ডলের সঙ্গে বছর দুই আগে বিয়ে হয় অশোকনগর সেনডাঙা জয়কৃষ্ণপুর
এলাকার মিঠুন মন্ডলের। অভিযোগ, বিয়ের পর থেকে পণের দাবিতে চাপ দিতে থাকে মেয়ের পরিবারকে। বাবা কঙ্কন বিশ্বাস জামাইয়ের চাহিদা পূরণ করার চেষ্টা করত। কিন্তু অভাবের জন্য সব সময় তা পেরে উঠতো না। চাহিদা দিনের পর দিন বেড়েই চলছিল। বাবা দিনমজুরের কাজ করায় সব চাহিদা মেটাতে পারত না। চাহিদা অনুযায়ী টাকা দিতে না পারায় মেয়ে মাধুরীকে শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার চালাত বলে অভিযোগ। স্বামী মিঠুন মন্ডল, শ্বশুর নগেন্দ্র মন্ডল, শাশুড়ি পুতুল মন্ডল অত্যাচার করতো।

বুধবার টেলিফোন মারফত মেয়ের বাড়ির লোকজন খবর পায় মাধুরী অসুস্থ অশোকনগর হাসপাতালে ভর্তি। সেখানে গিয়ে জানতে পারে মাধুরী গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। মাধুরীর পরিবারের অভিযোগ, মেয়েকে গলা টিপে শ্বাসরোধ করে খুন করে গলায় দড়ি দিয়ে ঝুলিয়ে দিয়েছে। এরপর তারা অশোকনগর থানায় মেয়ের স্বামী মিঠুন মন্ডল, শ্বশুর নগেন্দ্র মন্ডল, শাশুড়ি পুতুল মন্ডলের নামে অভিযোগ দায়ের করেন। ঘটনায় অভিযুক্ত মাধুরীর স্বামী মিঠুন মন্ডল, শ্বশুর নগেন্দ্র মন্ডলকে গ্রেফতার করে অশোকনগর থানার পুলিশ। মাধুরীর মৃতদেহ বারাসাতে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়।এলাকায় শোকের ছায়া।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here