বাড়ির সামনে মদের আসরের প্রতিবাদ করায় আক্রান্ত গৃহবধূ, বোমা মেরে ঘর পুড়িয়ে দেবার হুমকি

স্নেহাশীষ মুখার্জি, আমাদের ভারত, নদীয়া, ১০ মে:
বাড়ির সামনে দিনের বেলায় বসা মদের আসরের প্রতিবাদ করায় মদ্যপদের হাতে আক্রান্ত হলেন এক গৃহবধূ। গুরুতর আহত অবস্থায় ঐ গৃহবধূ শান্তিপুর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। প্রতিবাদ করায় বোমা মেরে ঘড় পুড়িয়ে দেবার হুমকি। রবিবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার শান্তিপুরে।

সূত্রের খবর, শান্তিপুর পুরসভার সুত্রাগড় এলাকার লঙ্কা পাড়ার বাসিন্দা গুলমত শেখের বাড়ির সামনে গত কয়েকদিন যাবৎ মদের আসর বসাচ্ছিল স্থানীয় কিছু যুবক। রবিবার সকালেও সেই মদের আসর বসলে তার প্রতিবাদ করে গৃহবধূ শরিফা বিবি। অভিযোগ, এর পরই ওই গৃহবধূকে ব্যাপক মারধর করে ওই মদ্যপ যুবকেরা। পরে ওই গৃহবধূর চিৎকারে মানুষ ছুটে এলে পালিয়ে যায় তারা। ঘটনায় আহত ওই গৃহবধূকে শান্তিপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনায় শান্তিপুর থানায় অভিযোগ করেছেন আক্রান্ত মহিলার স্বামী গুলমত শেখ।

গৃহবধূ সরিফা বিবি জানান, তিনি তাঁর স্বামী এবং মেয়েকে নিয়ে বাড়িতে থাকেন। স্বামীও সবসময় ঘরে থাকে না। কর্মসূত্রে তাঁকে বাইরে বেরতে হয়। ঘরে প্রতিবাদ করার লোক না থাকায় স্থাণীয় কিছু যুবক প্রতিদিন তাঁদের বাড়ির সামনে মদের আসর বসায়। লকডাউনের মধ্যেও প্রতিদিন নিয়ম করে তারা মদের আসর বসাচ্ছিল। তিনি বলে, আমার স্বামী অনেকবার তাঁদের বারণ করেছিল। কিন্তু ওরা কোনও কথাই শোনেনি। উল্টে বাড়ির সামনে মদ খেয়ে মেয়ে নিয়ে ফূর্তি করেছে। আমার বাড়িতেও একটা বিবাহযোগ্যা মেয়ে আছে। তাকেও বাড়ি থেকে বেরতে হয়। তাই আজকে সকালে মদের আসর বসলে আমি তার প্রতিবাদ করি। প্রতিবাদ করলে ওরা আমাকে কুরুচিকর মন্তব্য করে। আমার হাত মুচড়ে দিয়ে ড্রেনে ফেলে দেয়। গায়ে হাত দিয়ে আমার শ্লীলতাহানি করে, মারধর করে। আমার ডান হাতে এবং ডান পায়ে প্রচন্ড আঘাত লাগে। আমি চিৎকার করলে আশেপাশের লোকজন ছুটে এলে ওরা পালিয়ে যায় এবং যাওয়ার সময় ওরা আমাদের শাসিয়ে যায় বাড়িতে বোম মারবে বলে। আমরা এই ঘটনায় প্রচন্ড আতঙ্কে আছি। নিরাপত্তার অভাব বোধ করছি।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here