কলকাতার বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত বনগাঁর বধূ

সুশান্ত ঘোষ, আমাদের ভারত, বনগাঁ, ৬ মে: কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ডায়ালিসিস করাতে গিয়ে করোনা আক্রান্ত উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁর এক মহিলা। খবর পৌছাতেই তার বাড়ির আত্মীয়দের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেয় বনগাঁর প্রশাসন। শুরু হয় আক্রান্তের বাড়ি স্যানেটাইজ করার কাজ। জানাজানি হতেই এলাকায় ব্যপক আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

পরিবার সূত্রের খবর, ৪৮ বছরের ওই বধূ মাস দুই ধরে কিডনি জনিত রোগে ভুগছিলেন। তার উপরে হাই সুগার। দীর্ঘ দিন ধরে বনগাঁ হাসপাতালে চিকিৎসাও করেন তিনি। এরপর ১ তারিখে তার পরিবারের লোকজন তাকে কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা করান। হাসপাতলের চিকিৎসকের পরামর্শে ২ তারিখে সকালে ডায়ালাইসিস করান। তারপর থেকেই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। তার পরিবারের লোকজন চিকিৎসকের খোঁজ করতে গেলে, ওই চিকিৎসকের করোনা ধরা পড়েছে এই কথা গোপন করে।
হাসপাতাল সূত্রের খবর, ওই চিকিৎসক যে সমস্ত রোগীদের সংস্পর্শে এসে চিকিৎসা করেছেন সেই সব রোগীর লালা রসের নমুনা নিয়ে পরীক্ষা করা হয়। বুধবার সকালে বনগাঁর ওই গৃহবধূর রিপোর্ট পজেটিভ আসে। খবর পেয়ে বনগাঁর প্রশাসন তার বাড়িতে আসেন। বাড়ির আত্মীয়দের সঙ্গে কথা বলে তাদের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলেন। এমনকি আশপাশের বাজার বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়।

স্থানীয় বাসিন্দা অরিন্দম দে বলেন, এই প্রথম বনগাঁর কেউ করোনায় আক্রান্ত হল। এটা খুব উদ্বেবেগ জনক। আতঙ্ক তো বটেই। যদিও ওই মহিলা কলকাতায় চিকিৎসা করতে গিয়ে আক্রান্ত হয়েছে। এমন হলে বনগাঁর রোগীরা আর কলকাতা মুখী হবে না বলেই মনে করছেন।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here