নেতা মন্ত্রীদের এতো সম্পত্তি কি ভাবে বাড়ল, খতিয়ে দেখতে মামলায় ইডিকে যুক্ত করল হাইকোর্ট

আমাদের ভারত, ৮ আগস্ট: পার্থ ও অর্পিতা কান্ডের পর প্রকাশ্যে স্বীকার না করলেও বেশ অস্বস্তিতে আছে তৃণমূল কংগ্রেসের নেতারা। সেই পরিস্থিতিতেই অতিরিক্ত সম্পত্তি মামলায় সোমবার বড় নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা মন্ত্রীদের সম্পত্তি কিভাবে ও কি হারে বেড়েছে তা খতিয়ে দেখার আর্জি জানিয়ে দায়ের হওয়া জনস্বার্থ মামলায় ইডিকে যুক্ত করল হাইকোর্ট।

মামলার শুনানির পর কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তবের ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়ে দিল ইডিকে তারা এই বিষয়ে যুক্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অর্থাৎ এই মামলায় একটা পক্ষ এবার থেকে ইডিও। প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব এবং বিচারপতি রাজশ্রীর ডিভিশন বেঞ্চ আগামী ১২ সেপ্টেম্বরের মধ্যে এই মামলায় ইডিকে যুক্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন।

মনে করা হচ্ছে বিষয়টি দেখার দায়িত্ব একপ্রকার ইডিকেই দেওয়া হল। এমনিতেও অতিরিক্ত সম্পত্তি মামলায় তদন্ত করে ইডি। এই মামলাকারী ব্যক্তির নাম বিপ্লব কুমার চৌধুরী। তিনি নিজেকে সমাজ কর্মী বলেই জানিয়েছেন। মামলায় মোট ১৯ জন মন্ত্রী ও নেতার সম্পদ বৃদ্ধি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তিনি। সেই তালিকায় রয়েছে সরকারের বর্তমান মন্ত্রীদের নাম।

১৯ জন হলেন রাজ্যের বর্তমান মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, ব্রাত্য বসু, মলয় ঘটক, জাবেদ আহমেদ খান, অরূপ রায়। এছাড়াও রয়েছে অর্জুন সিং, সব্যসাচী দত্ত, শিউলি সাহা, বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়, গৌতম দেব, ইকবাল আহমেদ, স্বর্ণ কমল সাহা। এছাড়াও তালিকায় রয়েছেন তৃণমূলের প্রয়াত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, সাধন পান্ডে। রয়েছেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় ও প্রাক্তন দুই মন্ত্রী অমিত মিত্র, শোভন চট্টোপাধ্যায়। আবদুর রেজ্জাক মোল্লা।

নেতা মন্ত্রীদের আয় ও অতিরিক্ত সম্পত্তি নিয়ে এর আগে একটি মামলা করেছিলেন সিপিআইএম নেতা সুজন চক্রবর্তি। সেই মামলা এখনো নিষ্পত্তি হয়নি। এরপর এবার বিপ্লব কুমার চৌধুরী পৃথকভাবে মামলা করেছেন। সেই মামলা এবার কোন পথে এগিয়ে যায় সেটাই দেখার।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here