ইদে কটা মসজিদে হামলা হয়েছে? পরমব্রতকে পাল্টা দিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার

আমাদের ভারত, ১৮ অক্টোবর: বাংলাদেশে যেমন সংখ্যালঘু হিন্দুরা আক্রান্ত হয়েছে, তেমনি ভারতবর্ষেও সংখ্যালঘু মুসলমানরা আক্রান্ত হয়েছেন। বাংলাদেশের ঘটনার প্রতিক্রিয়া দিতে একথা বলেন, অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। রবিবার বালুরঘাটে বাংলাদেশের ঘটনায় বিজেপির বিক্ষোভ মিছিল থেকে এর পাল্টা দিতে গিয়ে সুকান্ত মজুমদার প্রশ্ন তোলেন, ভারতে ইদে কটা মসজিদে হামলা হয়েছে তার লিস্ট কি দিতে পারবেন? একই সঙ্গে তিনি বামপন্থীদেরও কটাক্ষ করেন।

সুকান্ত মজুমদার বলেন, এতদিন পরে বামপন্থী সংগঠনের নেতাদের চোখ খুলেছে। তারা হাজার হাজার কিলোমিটার দূরে ভেনিজুয়েলা, ভিয়েতনাম দেখতেন আর বলতেন ভুলে যাব বাবা মায়ের নাম, ভুলবো না ভিয়েতনাম। বাড়ির পাশে বাংলাদেশকে তারা দেখতে পেতেন না। সেখানে হিন্দুদের সংখ্যা ছিল ২০-৩০ শতাংশের ওপরে। সেটা কমতে কমতে খাতায়-কলমে ৮ শতাংশে নেমে এসেছে। এতদিনে তাদের চোখ খুলেছে। আজ তারা বলছে বাংলাদেশে যে আক্রমণ হয়েছে তা খারাপ হয়েছে।

আরও পড়ুন

ভারতবর্ষে হিন্দু ধর্ম সংস্কৃতি আছে বলেই এখানে সেক্যুলারিজমের গল্প শোনা যায়, দাবি সুকান্ত মজুমদারের

এরপর তিনি নাম না করে পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের মন্তব্যের পাল্টা দিতে গিয়ে বলেন, “বামপন্থীদের মধ্যে একাংশের বুদ্ধিজীবী বলছেন বাংলাদেশে সংখ্যালঘুরা যেমন আক্রান্ত ভারতবর্ষে ঠিক তেমনি সংখ্যালঘুরা আক্রান্ত। আমি তাদের প্রশ্ন করতে চাই যে শুধু এই বারের দুর্গাপুজো নয়, তার আগের বার দুর্গা পুজোয় কি কি আক্রমন হয়েছেন, তার লিস্ট মিডিয়াতে দেখতে পাবেন। কোন কোন হিন্দু মণ্ডপে, মন্দিরে আক্রমণ হয়েছে তার লিস্টও আপনি পেয়ে যাবেন ইন্টারনেটে। কিন্তু গত ইদে কটা মসজিদে হামলা হয়েছিল সেটার লিস্ট দেবেন তারপরে বলবেন এ দেশে সংখ্যালঘুরা বিপদে আছে। ”

আরও পড়ুন

গীতা সব ধর্মগ্রন্থের ভার বইতে পারে, কোরান অবমাননার অজুহাতে হিন্দুদের উপর হামলা প্রসঙ্গে বিবেকানন্দের কথা মনে করালেন সুকান্ত মজুমদার

আরও পড়ুন

বাংলাদেশের উগ্র মৌলবাদী ভাবনা সেখানেই সীমাবদ্ধ থাকবে ভাবলে ভুল ভাববেন, হিন্দুদের প্রতিবাদে শামিল হবার ডাক দিলেন সুকান্ত মজুমদার

তিনি কটাক্ষ করে আরও বলেন, ” হ্যাঁ আমরা জানি আপনাদের সিনেমা বিক্রি করতে গেলে বা আপনাদের পেট চালাতে গেলে বাংলাদেশের পেট্রো ডলার লাগে। একটা সময় উত্তম কুমার সাউথের হিরোর থেকেও বেশি পারিশ্রমিক পেতেন। আর এখনকার বাংলা ইন্ডাস্ট্রির অভিনেতা অভিনেত্রীরা সাউথের টেকনিশিয়ানদের থেকেও কম টাকা পান। তাই তাদের বাংলাদেশের ফান্ডিং এর ওপর নির্ভর করতে হয়। তাই আপনাদের সুখশান্তি নিয়ে আপনারা থাকুন। কিন্তু আমরা প্রকৃত ধর্মনিরপেক্ষতায় বিশ্বাস করি। সবার ভালো হোক, সবাই সুস্থ থাকুক, আমরা ভাগাভাগিতে বিশ্বাস করি না। আমরা বলি সবাই অমৃতের পুত্র, আমরা সবাই ঈশ্বরের পুত্র। আমরা সেই বিশ্বাসে বিশ্বাসী। তাই আপনাদের কেউ অধিকার দেয়নি হিন্দুদের চিন্তাধারার যে সনাতনী চিন্তা যা ৫ হাজার বছরেরও বেশি পুরনো তাকে অপমান করার।”

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here