জেলার খবর

বুলবুলের প্রভাবে চাষে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হাওড়া জেলায়

আমাদের ভারত, হাওড়া, ১০ নভেম্বর: শনিবার রাতে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল উপকূলবর্তী জেলাগুলিতে তান্ডব চালানোর পর বাংলাদেশের দিকে সরে যাওয়ায় রাজ্যের কিছুটা স্বস্তি দিয়েছে রাজ্যের মানুষকে। যদিও ঝড়ের প্রভাবে যেভাবে প্রাণহানির পাশাপাশি ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তাতে একরাতে মানুষের দুর্ভোগ অনেকটাই বাড়িয়ে দিয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের দাপটে রাজ্যের বেশ কয়েকটি জেলার পাশাপাশি হাওড়া জেলাতেও বেশ কিছু ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বিশেষ করে চাষে বিপুল পরিমাণ ক্ষতির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। শনিবার রাতে ঘূর্ণিঝড়ের দাপটে হাওড়ার বোটানিক্যাল গার্ডেনের গাছ ভেঙ্গে যাওয়ার পাশাপাশি শ্যামপুরে বাড়ির চালে গাছ পড়ে যাওয়া, টালির চাল উড়ে যাওয়া, বাঁশের গেট ভেঙ্গে পড়ার মতন ঘটনা ঘটলেও প্রশাসন সজাগ থাকায় সেভাবে বড়সড় দুর্ঘটনা ঘটেনি। এদিকে শনিবারের পর রবিবারেও নদীপথে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয় যদিও এদিন বিভিন্ন ত্রাণ শিবিরে আশ্রয় নেওয়া মানুষজন বাড়ি ফিরে যাওয়ায় শনিবার জেলার বিভিন্ন প্রান্তে খোলা সমস্ত ত্রাণ শিবির বন্ধ করে দেওয়া হয়।

অপরদিকে বুলবুলের প্রভাবে গত শুক্রবার থেকে ঝড় বৃষ্টির কারণে জেলায় চাষের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে জেলার উদয়নারায়ণপুর, আমতা ১ ও ২ নং ব্লক, বাগনান ১ ও ২ নং ব্লক এবং উলুবেড়িয়ায় চাষে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি চাষিদের। তাদের অভিযোগ বৃষ্টির পাশাপাশি ঝড়ের দাপটে ধান গাছ জমিতে শুয়ে পড়ার পাশাপাশি জমিতে ৮/৯ ইঞ্চি জল দাঁড়িয়ে যাওয়ায় ধান নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

অন্যদিকে জমিতে জল জমে যাওয়ায় আলু, ফুলকপি সহ শীতকালীন সবজি চাষে এবং বিভিন্ন শীতকালীন ফুল চাষে ও ক্ষতির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। চাষিদের মতে যেভাবে চাষে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তাতে সরকারের পক্ষ থেকে ব্যাবস্থা না নিলে প্রচুর ক্ষতির মুখে পড়তে হবে।
জেলায় চাষে ক্ষয়ক্ষতি সম্পর্কে হাওড়া জেলা পরিষদের কৃষি কর্মাধক্ষ্য রমেশ পাল জানান সরকারিভাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ হিসাব করা হচ্ছে। যাদের কৃষি বীমা করা আছে তারা ক্ষতিপূরণ পাবেন আর যাদের বীমা করা নেই তাদের ব্যাপারে সরকার চিন্তা ভাবনা করবে।

Leave a Comment

4 × three =

Welcome To Amaderbharat. We would like to keep you updated with the Latest News.