CBSE-ICSE-র মতই উচ্চমাধ্যমিকের বাকি পরীক্ষা বাতিল করল রাজ্য, ৩১জুলাইয়ের মধ্যেই ফল প্রকাশ

আমাদের ভারত, ২৬ জুন: সিবিএসসি আইসিএসসি মতোই একই পথে হেঁটে এবার উচ্চ মাধ্যমিকের বাকি থাকা পরীক্ষা বাতিল করল রাজ্য সরকার। উচ্চমাধ্যমিকের বাকি তিনটি পরীক্ষা বাতিল ঘোষণা করা হলো বলে শুক্রবার জানিয়ে দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। জুলাই মাসের ২,৬,৮ তারিখে পরীক্ষা হবার কথা ছিল। কিন্তু সিবিএসসি আইসিএসসি বোর্ড তথা সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই উচ্চমাধ্যমিকের বাকি থাকা তিনটি পরীক্ষা বাতিল করল সরকার। কিভাবে এই বিষয় গুলির মূল্যায়ন করা হবে তা নিয়ে উচ্চ শিক্ষা পর্ষদের বিশেষজ্ঞ কমিটির নিয়ম তৈরি করছে। বিজ্ঞপ্তি দিয়ে সেই নিয়ম জানিয়ে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। একইসঙ্গে বেসরকারি স্কুল গুলিকে ফি না বাড়ানোর আবেদন করেছেন তিনি। কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় গুলির পরীক্ষা কীভাবে হবে তা ইউজিসি’র চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

করোনা পরিস্থিতির কারণেই উচ্চমাধ্যমিকের তিনটি পরীক্ষা স্থগিত করে দেওয়া হয়েছিল জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহে। ওই তিনটি পরীক্ষা নেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিল রাজ্য সরকার। কিন্তু কেন্দ্রের সুপারিশ মেনে সুপ্রিমকোর্ট সিবিএসসি আইসিএসসি তাদের দশম ও দ্বাদশ শ্রেণীর পরীক্ষা বাতিল করে দিয়েছে। জানা যাচ্ছে ইন্টার্নাল অ্যাসেসমেন্ট ও শেষ তিনটি পরীক্ষার পাওয়ার নম্বরের ভিত্তিতে বাকি থাকা পরীক্ষা গুলির মূল্যায়ন করা হতে পারে। রাজ্যের ক্ষেত্রেও বাতিল হয়ে যাওয়া পরীক্ষা গুলির মূল্যায়ন বিধি কী হবে তা নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবে উচ্চ শিক্ষা পর্ষদের বিশেষজ্ঞ কমিটি। আগামী কিছুদিনের মধ্যেই তা নিয়ে একটি স্পষ্ট নির্দেশিকা জারি করে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষা মন্ত্রী। তবে কেউ যদি এই বিকল্প পদ্ধতি পছন্দ না করেন সেক্ষেত্রে সে পরীক্ষা দিতে পারবে। তবে সে পরীক্ষা হবে পরিস্থিতি সম্পূর্ণ স্বাভাবিক হলে।

পার্থ বাবু বলেন, রাজ্য সরকারের কাছে পড়ুয়াদের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তায় সবচেয়ে আগে। একইসঙ্গে পার্থবাবু জানিয়ে দেন ৩১ শে জুলাইয়ের মধ্যে ফল প্রকাশ হবে। তা না হলে সর্বভারতীয় পরীক্ষা গুলিতে পড়ুয়ারা অংশগ্রহণ করতে পারবে না। তবে মাধ্যমিকের ফল কবে প্রকাশ হবে জিজ্ঞাসা করা হলে পার্থ বাবু বলেন,” চাইলে ১০ দিনের মধ্যেই ফল প্রকাশ করা যায়। কিন্তু তাতে লাভ কি? কোন স্কুলে এখন ক্লাস হবে না।”

কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা নিয়ে ইউজিসির সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। একই সঙ্গে বেসরকারি স্কুল গুলির ফি বৃদ্ধির প্রসঙ্গে তিনি আবেদন করেছেন যাতে স্কুল গুলি তাদের ফি বৃদ্ধি না করে। এই বিষয়ে তিনি মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের হস্তক্ষেপ দাবি করেছেন। পার্থবাবুর বক্তব্য সিবিএসই স্কুল গুলি তারাই নিয়ন্ত্রণ করে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here