পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রাম জেলায় হুল দিবস উদযাপন

জে মাহাতো, আমাদের ভারত, মেদিনীপুর, ৩০ জুন: রাজ্যের অন্যান্য জেলাগুলোর মত পশ্চিম মেদিনীপুর এবং ঝাড়গ্রাম জেলাতেও বিভিন্ন রাজনৈতিক দল এবং সামাজিক প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে যথাযোগ্য মর্যাদায় হুল দিবস পালিত হয়েছে।

পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে মূল অনুষ্ঠানটি হয়েছে কেশিয়াড়িতে। এখানকার রবীন্দ্রভবনে এদিন আদিবাসী বীর মুক্তিযোদ্ধা সিধু কানুর একটি পূর্ণবায়ব মূর্তি উন্মোচন করেন জেলা শাসক আয়েসা রানি। জেলার মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় কৃতী আদিবাসী শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়।
অনুষ্ঠানে ছিলেন মন্ত্রী শ্রীকান্ত মাহাতো, জেলা পরিষদের সভাধিপতি উত্তরা সিংহ হাজরা, বিধায়ক অজিত মাইতি, বিক্রম প্রধান, সূর্য অট্ট, পরেশ মুর্মু, জেলা পরিষদের শিক্ষা কর্মাধ্যক্ষ মামনি মান্ডি।

ঝাড়গ্রাম জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শহিদ দিবসের মূল অনুষ্ঠানটি হয় রামগড়ে সেখানে সিধু কানহু’র মূর্তিতে মাল্য দান করেন মন্ত্রী বিরবাহা হাঁসদা। উপস্থিত ছিলেন বিধায়ক খগেন্দ্র নাথ মাহাতো ও সরকারি আধিকারিকরা।

আদিবাসী বীর শহিদ সিধু কানুকে সম্মান জানাতে ঝাড়গ্রাম জেলা বিজেপির পক্ষ থেকে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় জঙ্গলমহলের বেলপাহাড়িতে। এখানে সিধু কানুর প্রতিকৃতিতে মাল্য দান করে শ্রদ্ধা জানান, বিধানসভার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকে তিনি আদিবাসীদের প্রতি রাজ্য ও কেন্দ্র সরকারের ভূমিকা নিয়ে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন। বক্তব্য শেষে স্থানীয় আদিবাসী সাংস্কৃতিক দলগুলির হাতে ধামসা মাদল তুলে দিয়ে কেশিয়াড়িতে অন্য একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেন। এছাড়াও এদিন জঙ্গলমহল উদ্যোগের দুই জেলা কমিটির পক্ষ থেকেও হুল দিবস পালন করা হয়েছে।

এদিন নবান্নে আয়োজিত হুল দিবসের অনুষ্ঠানে শহিদ সিধু কানুর মূর্তি তাতে মাল্যদান করে শ্রদ্ধা জানান ঝাড়গ্রামের প্রাক্তন সাংসদ উমা সরেন।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here