লকডাউন ভেঙে কয়েকশো মহিলার মিছিল বালুরঘাটে, রাজ্যে নজিরবিহীন এই ঘটনায় প্রশ্ন চিহ্নে প্রশাসন

আমাদের ভারত, বালুরঘাট, ৩০ মার্চ: তৃণমূলের চাল-আলু বিলি নিয়ে বালুরঘাটে লক ডাউন ভেঙে বাসিন্দাদের বিক্ষোভের ঘটনা তৃতীয় বার ঘটল। সোমবার সেই সূত্র ধরেই থানা ঘেরাও কয়েকশো মহিলার। বিক্ষোভের চাপে পড়ে আটক এক যুবককে ছাড়তে বাধ্য হল পুলিশ। বাড়ি ফিরতেই ফের দুষ্কৃতিদের কবলে পড়ে মাথা ফাটলো এক বিক্ষোভকারীর। ঘটনায় আহত হয়েছে আরো বেশ কয়েকজন।

আজ দিনভর এই ঘটনাকে ঘিরে রনক্ষেত্রের চেহারা নেয় শহরের ২০ নম্বর ওয়ার্ডের রবীন্দ্রনগর এলাকা। ঘটনার খবর পেয়ে এলাকায় বিরাট পুলিশ বাহিনী পৌঁছলেও কাউকেই গ্রেপ্তার করতে পারেনি। পুলিশ জানিয়েছে, আহত ওই ব্যক্তির নাম গোপাল নট্ট।

বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, ২১ নম্বর ওয়ার্ডে তৃণমূলের তরফে ৫ কেজি করে চাল, আলু বিলি করা হলেও তাঁদের এলাকায় মুখ চিনে চিনে ওই চাল আলু বিলি করা হচ্ছিল। যার প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন তারা। তাতেই উল্টে তাঁদের মারধরের হুমকি দিয়ে বিষ খাইয়ে মেরে ফেলার হুঁশিয়ারিও দেওয়া হয়েছে। এই ঘটনায় পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গৌরব মহন্ত নামে এলাকার এক যুবককে তুলে আনে। যার বিরুদ্ধে মামলা দেবারও হুশিয়ারি দেয় বলে অভিযোগ। পুলিশের এই ঘটনার প্রতিবাদেই আজ থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখান উত্তেজিত বাসিন্দারা। পরিস্থিতির চাপে পড়ে আটক ওই যুবককে ছেড়ে দিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে বালুরঘাট থানার পুলিশ।

তবে করোনা মোকাবিলায় লকডাউন পরিস্থিতির মধ্যে চাল, আলু বিলি নিয়ে বারবার বাসিন্দাদের এমন বিক্ষোভের ঘটনা সামনে এলেও উদাসীন প্রশাসন। এদিকে শহরে লাগাতার এমন বিক্ষোভ, মিছিল ও থানা ঘেরাও এর ঘটনায় করোনার আতঙ্কে ঘুম উড়েছে বাসিন্দাদের। বার বার এমন ঘটনা কেন ঘটছে আর তারপরেও সেই চাল, আলু বিলিতে কেন উপযুক্ত পদক্ষেপ করা হচ্ছে না তা নিয়ে প্রশাসনের ভুমিকায় সরব হয়েছেন বাসিন্দাদের একাংশ।

রাজু সরকার নামে এক বাসিন্দা বলেন, এটা মানুষের জীবন-মরনের লড়াই। অথচ এরই মাঝে কিছু লোক রোজই চাল, আলু বিলি করছে। আর যা নিয়ে মানুষ একত্রিত হয়ে কোথাও বিক্ষোভ আন্দোলন করছে। এসব বন্ধ হওয়া প্রয়োজন। প্রশাসনের উচিত সকলকেই ঘরে ঢুকিয়ে রাখার ব্যবস্থা করা।

বিক্ষোভকারীদের তরফে ছোটন রায়, সুজয় মহন্তরা জানিয়েছেন, লকডাউন পরিস্থিতিতে তাঁরা খেতে পাচ্ছেন না। তৃণমূলের তরফে চাল, আলু বিলি সমান ভাবে না হওয়ায় তাঁরা প্রতিবাদ করেছিলেন মাত্র। আর তাতেই তাঁদের হুমকি দেওয়া হচ্ছে, বিষ খাইয়ে মেরে ফেলার কথাও বলছে ওই সব লোকজন। উল্টে পুলিশ তাঁদের ছেলেকেই তুলে নিয়ে যায়। যার প্রতিবাদেই এদিন বিক্ষোভ। আজ বাড়ি ফেরার সময় তাঁদের গ্রামের এক যুবককে মেরে মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে দুষ্কৃতীরা। বেশ কয়েকজনকে ব্যাপক মারধরও করেছে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতিরা।

বিষয়টি নিয়ে পুলিশকে ফোন করা হলে মিটিংএ ব্যস্ত থাকায় কোন মন্তব্য করতে পারেননি পুলিশ আধিকারিকরা।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here