উত্তর প্রদেশের অপসংস্কৃতি বাংলায় আমদানি হতে দেব না : ফিরহাদ হাকিম

আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগণা, ১৩ অক্টোবর:
“উত্তর প্রদেশের অপ সংস্কৃতি বাংলায় আমদানি করতে চাইছে বিজেপি, বিজেপির সেই চেষ্টা কখনই সফল হবে না। এই বাংলাকে অশান্ত হতে দেব না ।” উত্তর ২৪ পরগনার টিটাগড়ে শান্তি মিছিল করে বিজেপির উদ্দেশ্যে হুশিয়ারি দিলেন রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

বিজেপি নেতা মণীশ শুক্লা হত্যাকাণ্ডের জেরে ক্রমশ রাজনৈতিক উত্তাপ বাড়ছে ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলের টিটাগড় এলাকায়। এবার মণীশ হত্যা কান্ডের পর টিটাগড় এলাকায় মঙ্গলবার বিকেলে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে শান্তি মিছিল করল তৃণমূল কংগ্রেস শীর্ষ নেতৃত্ব। রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, দমদম কেন্দ্রের সাংসদ অধ্যাপক সৌগত রায়, টিটাগড় পৌরসভার পৌর প্রশাসক প্রশান্ত চৌধুরী, ব্যারাকপুর পৌরসভার পৌর প্রশাসক উত্তম দাস সহ কয়েক হাজার তৃণমূল সমর্থক ও সাধারণ মানুষকে সঙ্গে নিয়ে টিটাগড় থেকে ব্যারাকপুর পর্যন্ত এই শান্তি মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। শান্তি মিছিল শেষ হয় ব্যারাকপুরে। সেখানে তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বিজেপির বিরুদ্ধে এক রাজনৈতিক সভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান বক্তা ছিলেন রাজ্যের পুর ও নগরউন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। এই প্রতিবাদ সভায় এসে মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেন, “বিজেপি গোটা বাংলাকে অশান্ত করতে চাইছে, বাংলায় উত্তর প্রদেশ, গুজরাটের খুনের সংস্কৃতি ফিরিয়ে আনতে চাইছে। অর্জুন সিংরা সেই চেষ্টা যতই করুক, তাদের চেষ্টা সফল হবে না । আমরা টিটাগড় অঞ্চলের বাসিন্দাদের বলতে চাই এখানে আপনারা সবাই মিলে মিশে শান্তিতে থাকুন। কোনও বিভদকামি শক্তি মাথা চাড়া দিতে পারবে না। সেই কারণেই আজ আমাদের শান্তি মিছিলের কর্মসূচি। যে ঘটনা ঘটেছে আইনত তার শাস্তি হবে ।”

মণীশ খুনের ঘটনায় সিবিআই তদন্তের দাবি করে ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং “হাল্লা বোল” কর্মসূচির ডাক দিয়েছেন। সেই বিষয়ে মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেন, “ওরা যা ইচ্ছা নাটক করুক, ডিগবাজি খাক, কিছু বলার নেই। তবে এলাকায় অশান্তি করা যাবে না ।” ব্যারাকপুরে শান্তি মিছিলের শেষে প্রতিবাদ সভায় এসে মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম নিজের বক্তব্যে রাজ্যপালকে তীব্র কটাক্ষ করে বলেন, “রাজভবনে বসে বিজেপির পক্ষ নিয়ে উনি কাজ করছেন। আসলে উনি যদি বিজেপির কাজ না করেন, অমিত শাহ উনার চাকরি খেয়ে নেবে। এরকম রাজ্যপাল আগে দেখা যায়নি। উনি বিজেপি নেতাদের থেকে এক কাঠি এগিয়ে মন্তব্য করেন।”

বিজেপির নবান্ন অভিযানে নিরাপত্তা রক্ষী বলবিন্দর সিংয়ের বন্দুক নিয়ে মিছিলে যাওয়া আইনত অপরাধ বলে মন্তব্য করেন ফিরহাদ হাকিম। তিনি বলেন, “কেউ অপরাধ করলে তার আইনত শাস্তি হবে। সেটা নিয়ে জাতপাতের রাজনীতি করছে বিজেপি। যে রাজ্যের বন্দুকের লাইসেন্স থাকে সেই অস্ত্র সেই রাজ্যে ব্যবহারের জন্য বৈধ। অন্য রাজ্যে সেই অস্ত্র নিয়ে ঘোরা যায় না।” বিজেপি বাংলাকে যতই অশান্ত করার চেষ্টা করুক মমতা বন্দোপাধ্যায় থাকতে বিজেপির সেই চেষ্টা ব্যর্থ হবে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here