উত্তেজনার পারদ চড়ছে! সীমান্তে প্রস্তুত যুদ্ধ বিমান, এয়ার বেস পরিদর্শনে বায়ুসেনা প্রধান

আমাদের ভারত, ১৯ জুন: কোনভাবেই পরিস্থিতি শান্ত হচ্ছে না চিন-ভারত লাদাখ সীমান্তে। বৃহস্পতিবারও দু’পক্ষের মেজর জেনারেল পর্যায়ে বৈঠক হয়। কিন্তু সেখানেও সমাধান সূত্র পাওয়া যায়নি। দীর্ঘ ৬ ঘণ্টা বৈঠকের পরেও দখল করা ভারতীয় জমি পরিত্যাগ করার কোন লক্ষন দেখা যায়নি চিনা সেনার মধ্যে। বরং ভারতীয় ভূখণ্ডের কয়েক কিলোমিটার ভিতরে ঢুকে এসে চিনা সেনা ঘাঁটি গেড়েছে। তাই সেখান থেকে তাদের হটাতে স্পেশাল ফোর্স নামাতে হবে বলে মত বিশেষজ্ঞদের। এই অবস্থায় ভারতীয় বায়ুসেনার একগুচ্ছ যুদ্ধ বিমানকে লাদাখ সন্নিকটস্থ এয়ার বেসে হাজির করানো হয়েছে। ইতিমধ্যেই বায়ুসেনা প্রধান লে ও শ্রীনগর এয়ারবেস পরিদর্শনও করেছেন।

শুক্রবার শ্রীনগর ও লে এয়ার বেস পরিদর্শন করতে পৌঁছান বায়ুসেনা প্রধান আর কে এস ভাদুড়িয়া। দুদিনের সফরে শ্রীনগর ও লে ঘুরে দেখেছেন বায়ুসেনা প্রধান। চিনের সঙ্গে উত্তেজক পরিস্থিতিতে শ্রীনগর ও লে-তে বেশ ভালো সংখ্যায় বায়ুসেনার যুদ্ধবিমান মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়াও বৃহস্পতিবার ১২টি সুখোই এবং ২১টি মিগ-29 যুদ্ধবিমান দেওয়ার জন্য প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের কাছে প্রস্তাব পাঠিয়েছে বায়ুসেনা।

গত দু’দশক ধরে বায়ুসেনার মূল অস্ত্র সুখোই। সীমান্তের ফরওয়ার্ড বেস গুলিতে আনা হয়েছে স্কোয়াড্রন সুখোই।
এছাড়াও আগামী মাসে অত্যাধুনিক রাফাল বিমান হাতে পাবে বায়ুসেনা।

চিনা হামলায় সোমবার ভারতীয় জওয়ানের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। দু’দেশের জাওয়ানের মধ্যে সংঘর্ষে শহীদ হয়েছেন ২০ জন ভারতীয় জওয়ান। দ্রুত অ্যাকশনের জন্য তৈরি রয়েছে একগুচ্ছ ফাইটার জেট লাদাখ সীমান্তের কাছের এয়ার বেসে।

অন্যদিকে খবর পাওয়া গেছে সোমবার রাতে লাদাখ সীমান্তে সংঘর্ষের পর ভারতের তিন সেনা অফিসার সহ দশ জনকে আটকে রেখেছিল চিন। দিন কয়েক পরে তাদের ছেড়ে দেওয়া হল।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here