মেচেদা লোকাল ট্রেনে পাওয়া ট্রলি ব্যাগ বন্দি মৃতদেহ শনাক্ত হল

14

আমাদের ভারত, পূর্ব মেদিনীপুর, ২৭ ফেব্রুয়ারি:
মেচেদা লোকাল ট্রেনের মধ্যে ট্রলি ব্যাগে থাকা মৃতদেহ অবশেষে শনাক্ত হল। মৃত ব্যক্তির নাম হাসান আলি। বয়স প্রায় ৫০। মৃত ব্যক্তির কলকাতার বউবাজারে কাঠের ব্যবসা ছিল। কলকাতার বি.বি গাঙ্গুলি স্ট্রিটে স্ত্রী ও ছেলেকে নিয়ে থাকতেন এই হাসান আলি।

গতকাল পাঁশকুড়ার জিআরপি থানার পুলিশের সঙ্গে এসে মৃতদেহ শনাক্ত করে পরিবারের লোকজন এবং অভিযোগ দায়ের করেন দুই ব্রোকারের নামে। মেচেদায় মৃত হাসান আলি নিউ দিঘায় প্রতিমা নামে একটি হোটেল এক বছরের জন্য ২১ লক্ষ্য টাকায় লিজ নেওয়ার কথা হয় দুই বোকারের মাধ্যমে। জানুয়ারি মাসে কথা মতো ২ লক্ষ টাকা দিয়ে ১০ টাকার স্ট্যাম্প পেপারে চুক্তি হয়। ফেব্রুয়ারিতে সমস্ত টাকা মিটিয়ে ১ মার্চ থেকে হোটেল হাতে নেওয়ার কথা ছিল হাসানের। কথা মত ১২ ফেব্রুয়ারিতে দুই বোকারকে নিয়ে ১৩ লক্ষ টাকা দিয়ে আসে হোটেল মালিককে। তারপর আর হোটেল মালিকের সঙ্গে দেখা হয়নি। বাকি ছিল ছয় লক্ষ টাকা। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি বাকি ৬ লক্ষ টাকা দেওয়ার জন্য দিঘা গিয়েছিলেন বলে পরিবারের অনুমান। কিন্তু ২৪ তারিখ সকালের পর থেকে হাসানের আর ফোন পাওয়া যায়নি। ফোন সুইচ অফ ছিল বলে পরিবারের লোকজন জানিয়েছেন।

যে দু’জন বোকারের নাম পাওয়া যাচ্ছে তারা হল গৌতম আর রবি। গৌতম আর রবির মাধ্যমেই হাসান হোটেল বুকিং করেছিলেন। পরিবারের লোকজনের দাবি হাসান আলিকে দুই ব্রোকার টাকা আত্মসাত করার জন্য খুন করেছে। হাসানের মোবাইলের শেষ টাওয়ার লোকেশন রামনগর পাওয়া যাচ্ছে বলে পরিবার সূত্রে জানা গেছে। পুরো ঘটনার তদন্ত করে দেখছে পাঁশকুড়া জিআরপি থানার পুলিশ। তবে এখনো পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি।

হাসান আলির মৃতদেহ ময়নাতদন্তের পর পরিবারের লোকজনের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। মৃতদেহ নিতে এসে কান্নায় ভেঙে পড়েন স্ত্রী ও ছেলে এবং পরিবারের অন্যান্যরা। স্ত্রী এবং পরিবারের লোকজনের দাবি, এই খুনের ঘটনার সঠিক তদন্ত চাই এবং যারা জড়িত তাদের কঠিন শাস্তির দাবি করেছেন তারা।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here