বিজেপির কাছে পরিযায়ী শ্রমিকের তালিকা থাকলে দিক, একদিনে ফেরাব: তৃণমূল

চিন্ময় ভট্টাচার্য, আমাদের ভারত, ৯ মে: পরিযায়ী শ্রমিক ইস্যুতে বিজেপির অভিযোগের জবাবে এবার পালটা আক্রমণের রাস্তায় হাঁটল তৃণমূল কংগ্রেস। রীতিমতো ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সাংবাদিক বৈঠক করে আজ শনিবার, পরিযায়ী শ্রমিক ইস্যুতে গেরুয়া শিবিরের নেতাদের চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন তৃণমূল নেতৃত্ব। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে সাংবাদিক বৈঠকে কার্যত চ্যালেঞ্জ জানালেন রাজ্যের মন্ত্রী তথা সাংবাদিক বৈঠকে তৃণমূলের প্রতিনিধি মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘বিজেপির নেতারা কোনও খোঁজ রাখেন না। রাজ্য বিজেপি সভাপতির কাছে পরিযায়ী শ্রমিকদের তালিকা থাকলে দিক। ভিনরাজ্যের যেখানেই তাঁরা থাক, একদিনের মধ্যেই ফিরিয়ে আনবে রাজ্য।

এর আগে রাহুল সিনহা থেকে দিলীপ ঘোষ-সহ রাজ্য বিজেপির একের পর এক নেতা অভিযোগ করেছেন, পরিযায়ী শ্রমিকদের ব্যাপারে রাজ্য সরকার উদাসীন। বিভিন্ন রাজ্যে পরিযায়ী শ্রমিকরা এখন আটকে আছেন। তাঁরা ফিরে এলেই ফাঁস হয়ে যাবে, ঠিক কত শ্রমিক ভিনরাজ্যে কাজ করতে যান। সেই কারণেই রাজ্য সরকার পরিযায়ী শ্রমিকদের কোনও দায়িত্ব নিচ্ছে না বলেই অভিযোগ করেছিলেন দিলীপ ঘোষ। শুধু অডিযোগই নয়, বিজেপি নেতারা গত কয়েকদিন ধরেই পরিযায়ী শ্রমিকদের ভিডিও বার্তা প্রকাশ করেছেন। সেই সব বার্তায় পরিযায়ী শ্রমিকরা রাজ্য সরকারের কাছে দ্রুত তাদের ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার আবেদন করেছেন।

পাশাপাশি, এদিন এক চিঠিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ অভিযোগ করেছেন, পশ্চিমবঙ্গ সরকার পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরানোর ব্যাপারে কোনও উদ্যোগই নিচ্ছে না। কেন্দ্রীয় সরকার যখন শ্রমিকদের ফেরাতে ট্রেন চালু করেছে, তখন রাজ্য সরকার ওই শ্রমিকদের ফেরাতে অনীহা প্রকাশ করেছে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এই অভিযোগও এদিন মিথ্যে বলে উড়িয়ে দেন সাংবাদিক বৈঠকে তৃণমূলের অপর দুই প্রতিনিধি ডেরেক ও’ ব্রায়েন এবং কাকলি ঘোষ দস্তিদার। রাজ্যে বর্তমানে পুরুলিয়া, মালদা, নিউ জলপাইগুড়ি-সহ বিভিন্ন জায়গায় প্রায় ৮০ হাজার পরিযায়ী শ্রমিক প্রবেশ করেছেন। অমিত শাহের কাছে সেই সব তথ্য নেই বলেই অভিযোগ করেছেন ডেরেক।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here