পশ্চিম মেদিনীপুরের কেন্দাশোলে হুদুড় দুর্গায় মহিষাসুর স্মরণ

পার্থ খাঁড়া, আমাদের ভারত, পশ্চিম মেদিনীপুর, ৪ অক্টোবর: আম বাঙালি যখন শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গোৎসবে মেতে থাকেন ঠিক তখনই পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার প্রত্যন্ত জঙ্গল ঘেরা গ্রাম কেদাশোলের মানুষ স্মরণ করেন মহিষাসুরকে।

সাঁওতাল কুড়মালি সমাজের মানুষের কাছে এই মহিষাসুর স্মরণ একটি অন্য মাত্রা পায়। তৎকালীন আর্য সমাজের রাজারা মহিষাসুরকে বধ করেছিলেন দুর্গাকে দিয়ে ছলনার মাধ্যমে। আর তাই সাধারণ মানুষ যখন দুর্গোৎসবে মেতে থাকেন ঠিক সেই সময় এই প্রত্যন্ত গ্রামের আদিবাসী মানুষরা শহিদ স্মরণ করেন অসুরের মূর্তিকে সামনে রেখে। সপ্তমীর সন্ধ্যা থেকে দশমী পর্যন্ত শহিদ স্মরণ অনুষ্ঠান করে থাকেন এখানকার মানুষ। পাশাপাশি প্রায় ১০ টি গ্রামে হয় না কোনও দুর্গোৎসব। এখানকার মানুষ মহিষাসুরকে স্মরণের মাধ্যমে তাদের এই দুর্গোৎসব পালন করে থাকেন বলেই জানা যায়। তাদের কাছে দুর্গোৎসব মানেই হুদুড় দুর্গার স্মরণ।
২০১৬ সাল থেকে এই স্মরণ অনুষ্ঠান শুরু হলেও করোনা আবহের জেরে আর্থিক অনটনের জন্য এবছর সেভাবে আর বড় করে স্মরণ অনুষ্ঠান হচ্ছে না বলেই জানিয়েছেন এই স্মরণ অনুষ্ঠানের অন্যতম উদ্যোক্তা রাম হাঁসদা।

হুদুর দুর্গা হল খেরওয়াল সাঁওতাল জনগোষ্ঠীর উপাস্য দেবতা, যাকে সাঁওতালরা হিন্দুধর্মের মহিষাসুর বলে দাবি করে থাকে। সাঁওতালরা হিন্দু ধর্মের দেবী দুর্গাকে  খলনায়িকা হিসেবে বিবেচনা করে থাকে এবং এর বিপরীতে তারা মহিষাসুরের পূজা করে থাকে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here