পাটুলিতে করোনা-আক্রান্ত ব্যক্তিকে জুতোপেটা, অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে হেনস্থার অভিযোগ প্রতিবেশীদের বিরুদ্ধে

ছবি: করোনা আক্রান্তের স্ত্রী।
রাজেন রায়, কলকাতা, ২২ জুলাই: করোনা আক্রান্তকে বারবারই ঘরে থাকার নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্য দফতর। কিন্তু কোনও ক্ষেত্রে আক্রান্তরা স্বাভাবিক জীবনযাপনের মত রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন, আবার কোথাও তারা হোম আইসোলেশনে থাকলেও প্রতিবেশীরা আক্রান্ত হওয়ার ভয় পাচ্ছেন। ঠিক সেরকমই ঘটনা ঘটল পাটুলি থানার কেন্দুয়া মেন রোডে। করোনা আক্রান্তকে জুতোপেটা করার অভিযোগ উঠল প্রতিবেশীদের বিরুদ্ধে। হেনস্থা করে ধাক্কা দেওয়ার অভিযোগ উঠল আক্রান্তের ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকেও।
পাটুলি থানায় ই-মেল মারফত অভিযোগ দায়ের করেন কোভিড আক্রান্তের স্ত্রী। যদিও প্রতিবেশীদের দাবি, প্রতিবাদ করা হলেও কোনও মারধর করা হয়নি। নিজেরা বাঁচতে এখন বানিয়ে বানিয়ে অভিযোগ করছেন করোনা আক্রান্তের স্ত্রী।

পুলিশ সূত্রে খবর, পাটুলির কেন্দুয়া মেন রোডে বহুতল আবাসনে এক সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে আইটি সংস্থার এক আধিকারিক থাকেন। কিছুদিন শরীর খারাপ থাকার পর সম্প্রতি ১৭ জুলাই তাঁর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। যদিও ওই ব্যক্তির দাবি, তিনি হোম আইসোলেশনে সুস্থ রয়েছেন। কিন্তু ওই ফ্ল্যাটে থাকা নিয়ে বেশ কয়েক দিন ধরেই প্রতিবেশীরা আপত্তি জানাচ্ছিলেন। তা নিয়ে বেশ কয়েক বার বচসাও হয়। যা চূড়ান্ত রূপ নেয় মঙ্গলবার সকালে।

অভিযোগ, মঙ্গলবার সকালে ওই ব্যক্তির স্ত্রী ছাদে গেলে তাঁর উদ্দেশে আপত্তিকর মন্তব্য করেন আবাসিকদের মধ্যে কয়েক জন। তিনি এবং তাঁর স্বামী এই ঘটনার প্রতিবাদ করলে তাঁদের হেনস্থা করা হয়। এরপরেই তাঁদের ঘরে ঢুকে এসে ছেলের সামনেই ভদ্রলোককে জুতোপেটা করা হয় বলে অভিযোগ করেছেন তাঁর স্ত্রী। আটকাতে গেলে তাঁকেও ধাক্কা মারা হয়।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন আবাসনের অন্যান্য প্রতিবেশীরা। তাঁদের দাবি, ওরা হোম আইসোলেশন মানছিলেন না। এদিক ওদিক ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন। লিফট ব্যবহার করে কখনও ছাদে চলে যাচ্ছিলেন, আবার কখনও রাস্তায় বেরিয়ে পড়ছিলেন। এতে অন্যদেরও আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থেকে যাচ্ছে। তার প্রতিবাদ করা হয়েছে, কিন্তু কেউ তাঁদের মারধর করেনি। তাঁরাও পাল্টা থানায় ওই পরিবারের বিরুদ্ধে স্বাস্থ্য বিধি না মেনে অন্যকে সংক্রমিত করার চেষ্টার অভিযোগ দায়ের করেছেন।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here