দক্ষিণ দিনাজপুরে ৭৬টি পরিবার তৃণমূল, সিপিএম ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিল

শ্রীরূপা চক্রবর্তী, আমাদের ভারত, ১৪ জুন:
দক্ষিণ দিনাজপুরে সিপিএম ও তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করার ঘটনা অব্যাহত। শেষ ১০ দিনে ওই জেলায় বহু তৃণমূল ও সিপিএম কর্মী বিজেপির পতাকা হাতে তুলে নিয়েছেন। রবিবার ফের ওই জেলার দুটি জায়গায় ৭৬টি পরিবার তৃণমূল সিপিএম ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিল। এদের মধ্যে ৪৬টি আদিবাসী পরিবার রয়েছে।

রবিবার দক্ষিণ দিনাজপুরের কুশমন্ডি বিধানসভার জেলা পরিষদের ৩ মৌলানি বুথে ৪৬টি আদিবাসী পরিবার বিজেপিতে যোগদান করেন। তাদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন বিজেপির জেলা সাধারণ সম্পাদক বাপি সরকার, স্বরূপ চৌধুরী, গৌতম রায় ও এস টি মোর্চার সভাপতি বুধরায় টুডু।

অন্যদিকে জেলার গঙ্গারামপুর বিধানসভার অন্তর্গত ঠ্যাংগপাড়া এলাকায় তৃণমূল সিপিএম ছেড়ে প্রায় ৩০টি পরিবার বিজেপিতে যোগদান করেন। এদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন বালুরঘাটের সাংসদ সুকান্ত মজুমদার। এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, বিজেপির জেলা সাধারণ সম্পাদক গৌতম রায় ও সড়ক চৌধুরী সহ একাধিক জেলা নেতৃত্ব।

বিজেপি সাংসদ সুকান্ত মজুমদার বলেন,”রাজ্যে মমতা ব্যানার্জি ও তাঁর ভাইপোর নেতৃত্বে যে চোরেদের সরকার চলছে তাকে উৎখাত করতেই তৃণমূল, সিপিএম ছেড়ে মানুষ বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন। লোকসভা ভোটের পর থেকে বিজেপিতে যোগদান করার ঢেউ উঠেছে। এছাড়াও করোনা এবং আমফান পরিস্থিতিতে রাজ্যের শাসক দল যেভাবে চুরির ঘটনা ঘটিয়ে চলেছে তাতে মানুষ ক্ষুব্ধ। যেমন রেশনের চাল চুরি হচ্ছে, তেমন রাজ্যে গণতন্ত্রের হত্যা হচ্ছে প্রতিদিন। সব ক্ষেত্রে বিরোধীদের আটকানোর চেষ্টা করছে রাজ্য সরকার। আর এইসব মানুষ দেখছে। তাই মানুষ আজ বিজেপির পতাকা তলায় এসে তৃণমূলের সরকার উৎখাতের লড়াই শুরু করেছে।

তিনি আরোও বলেন, “বামফ্রন্ট প্রকাশ্যে তৃণমূলের বিরোধিতা করলেও তলায় তলায় তৃণমূল সরকারের সঙ্গে যোগসাজশ করছে। তাই তৃণমূলের মতো সরকারকে সরাতে সিপিএম দিয়ে কাজ হবে না‌”। সাংসদ বাম কর্মী সমর্থকদের বিজেপির ছত্রছায়ায় আসার আহ্বান জানান। বাম কর্মীদের উদ্দেশ্য তিনি বলেন, “বিজেপিতে যোগদান করলে তাদের উপযুক্ত সম্মান এবং দায়িত্ব দেওয়া হবে। বিজেপিই একমাত্র তৃণমূল সরকারকে উৎখাত করতে পারে ও পশ্চিমবঙ্গের উন্নয়ন করতে পারে কারণ তারা আপোষহীন লড়াই করে যাবে এর জন্য। তিনি বলেন, বিজেপি এমন একটি দল যেখানে একজন কর্মী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখে এবং তা বাস্তবে পরিণত হয়।

সাংসদের কথায়, করোনার মত সংকটের সময় জনধন প্রকল্পের আওতায় মহিলাদের অ্যাকাউন্টে মোদী সরকার ৫০০ টাকা করে পাঠিয়েছে। মহিলারা বিনামূল্যে গ্যাসের সিলিন্ডার পেয়েছে। বিনামূল্যে রেশন পেয়েছে। আর তাতেই মানুষ বুঝেছে মোদী সরকার মানুষের জন্য কাজ করার চেষ্টা করছে। তাই রাজ্যে যদি বিজেপি ক্ষমতায় আসে তাহলে তৃণমূল সরকার আজ যে কেন্দ্রীয় প্রকল্পে চাষীদের ৬০০০ টাকা পাওয়া থেকে বঞ্চিত করে রেখেছে তা তারা পেতে শুরু করবেন। এমনকি আয়ুষ্মান প্রকল্প থেকে মানুষ স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রে বীমাও পাবেন রাজ্যের মানুষ।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here