বুলেটিনে অতিরিক্ত শূন্যে ভুল তথ্য! নবান্নের কাছে মুখ পুড়ল স্বাস্থ্য দফতরের

সৌভিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা, ১ এপ্রিল: সত্যিই কি সঠিক তথ্য প্রকাশ করেছিল স্বাস্থ্য দফতর? না কি বুধবার স্বাস্থ্য দফতরের ওয়েবসাইটে ভুলস্বীকার করে দেওয়া তথ্যই আসল তথ্য? সে নিয়ে বিতর্ক হয়তো থাকবে। কিন্তু রাজ্যে একদিনে হোম কোয়ারেন্টাইনের সংখ্যা হাজারের বদলে লক্ষ ছাড়িয়েছে বলে জানিয়ে নবান্নের শো কজের মুখে পড়লেন স্বাস্থ্য দফতরের কর্তারা। পরে জানানো হয়, তাড়াহুড়োয় অতিরিক্ত শূন্যের ফলেই এই বিভ্রান্তি।

ইতিমধ্যেই নবান্নে মৃতের সংখ্যা ভুল দেখানো হচ্ছে বলে দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি দাবি করেছেন, এ রাজ্যে মৃতের সংখ্যা ৩। বাকিদের নিউমোনিয়া বা ডেঙ্গুতে মৃত্যু হয়েছে। যদিও সংবাদমাধ্যমের কাছে সংখ্যাটা ৭ এবং তার পর্যাপ্ত তথ্যও রয়েছে। এবার রাজ্যে হোম কোয়ারেন্টাইনের সংখ্যা নিয়েও নবান্নের শো-কজের মুখে পড়ল স্বাস্থ্য দফতর। মঙ্গলবার স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিনে বলা হয়েছিল, ২৪ ঘন্টায় ১০৩৩৯১ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। কিন্তু এদিন জানা যায়, তাড়াহুড়োয় একটি শূন্য পড়ে যাওয়ায় সংখ্যাটা লক্ষ মনে হয়েছে, আসলে হবে ১০ হাজার ৩৪১ জন।

এদিকে মঙ্গলবার রাতে স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিনে এই খবর প্রকাশিত হতেই হইচই পড়ে যায়। একদিনে হোম কোয়ারেন্টাইনের সংখ্যা এত বেড়ে যাওয়ায় আতঙ্কিত হয়ে পড়ে সাধারণ মানুষ। তার ওপর রাতে আসে আরও ১০ জন নতুন আক্রান্ত হওয়ার খবর এবং ৩ জনের মৃত্যু সংবাদ। সব মিলিয়ে চরম আতঙ্কিত হয়ে পড়েন সকলে।

কিন্তু বুধবার দুপুরের পরেই আচমকা স্বাস্থ্য দফতরের হিসেব পালটে যায়। তারা জানায়, তাড়াহুড়োয় পড়ে যাওয়া একটা শূন্যের ভুলেই এতবড় বিভ্রাট ঘটে গিয়েছে। বুলেটিনে বলা হয়েছিল একদিনে রাজ্যের হোম কোয়ারেন্টাইনে ১,০০,৩৪১ জন। কিন্তু আসলে সংখ্যাটি হবে ১০,৩৪১ জন। অর্থাৎ মঙ্গলবার হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে ১০ হাজার ৩৪১ জনকে। বুধবার পাঠানো আরও ১০৩১৩ জনকে। সব মিলিয়ে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা মানুষের সংখ্যা ৫৭৪০৪ জন।

কিন্তু এই অসতর্কতার জন্য দায়ী কে? তা নিয়ে স্বাস্থ্য দফতরের কর্তারা মুখে কুলুপ এঁটেছেন। এমন বিভ্রাটে চূড়ান্ত ক্ষুব্ধ নবান্ন। কোন পরিস্থিতিতে কীভাবে এই ভুল হয়েছে, শো কজ করে তা স্বাস্থ্য দফতরের আধিকারিকদের ২৪ ঘন্টার মধ্যে জানাতে বলা হয়েছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here