চুড়ান্ত যুদ্ধ প্রস্তুতি ! লাদাখ সীমান্তে মিসাইল স্থাপন করল ভারত

আমাদের ভারত, ২৭ জুন: গত কয়েক সপ্তাহ ধরে পূর্ব লাদাখের এলএসিতে চিনা যুদ্ধ বিমান ও হেলিকপ্টারের তৎপরতা বেড়েছে। উপগ্রহ চিত্রে ধরা পড়েছিল সীমান্তের খুব কাছে এয়ার বেসও তৈরি করে ফেলেছে চিন। এমনকি ভারতীয় সেনার অবস্থান সম্পর্কে জানতে ড্রোনের মাধ্যমে নজরদারিও চালিয়েছে চিনা সেনা। এবার চিনা যুদ্ধ বিমান ও ড্রোনকে নিমেষে মাটিতে নামাতে খুব উন্নত ও দ্রুত গতি সম্পন্ন এয়ার ডিফেন্স মিসাইল পূর্ব লাদাখে স্থাপন করল ভারত।

গত মে মাস থেকেই লাদাখ সীমান্তে উত্তেজনা শুরু হয়। ১৫ জুন তার রক্তাক্ষয়ী সংঘর্ষের রূপ নেয়। মৃত্যু হয় ২০ জন জওয়ানের। তারপর থেকে উভয় পক্ষের মধ্যে সেনা ও কূটনৈতিক স্তরে সমস্যা সমাধানে আলোচনা শুরু হয়। সেনা পর্যায়ের আলোচনায় দুপক্ষ সীমান্ত থেকে সেনা সরানোর বিষয়ে একমত হয়। কিন্তু কার্যক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে চিন দ্বিচারিতা করছে। মুখে সেনা সরানোর কথা বললেও সীমান্তে কাঠামো নির্মাণের কাজ তারা চালিয়ে যাচ্ছে। লাদাখ সীমান্তে ব্যপক হারে উড়ছে চিনা জেট, হেলিকপ্টার। এমনকি ড্রোনের মাধ্যমে ভারতীয় সেনার অবস্থান দেখারও চেষ্টা চালাচ্ছে চিন।

এই পরিস্থিতিতে ভারতও যেকোনো পরিস্থিতির মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। ইতিমধ্যেই বায়ুসেনা প্রধান ও সেনা প্রধান লাদাখ পরিদর্শন করে গেছেন। পরিস্থিতি অনুযায়ী জবাব দিতে সেনাকে পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়া হয়েছে। তারপরেই দেখা যাচ্ছে, ভারতীয় সেনাও লাদাখ সীমান্তে বিপুল যুদ্ধ সরঞ্জাম মজুত করছে। সেখানে পৌঁছেছে বড় সংখ্যায় যুদ্ধ বিমান, হেলিকপ্টার চিনুক, অন্যতম শক্তিশালী ট্যাঙ্কার T-90 ভীষ্ম।

এবার আকাশ পথে চিনা হানা প্রতিরোধ করতে ও চিনা হামলার জবাব দিতে এয়ার ডিফেন্স মিসাইলও পূর্ব লাদাখে স্থাপন করল ভারত।

ভারতের তরফে কূটনৈতিক স্তরে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, অবিলম্বে সীমান্তে কাঠামো নির্মাণ বন্ধ করতে হবে চিনকে। তা নাহলে অভিঘাত অবশ্যম্ভাবী। ফলে লাদাখে চিন যদি কোনওভাবে স্থিতিবস্থা ভাঙে তার উপযুক্ত জবাব দিতে তৈরি ভারত। এবার এয়ার ডিফেন্স মিসাইল সেখানে স্থাপন করে বেজিং-এর উদ্দেশ্যে সেই বার্তাকেই জোড়দার করল ভারত বলে মনে করছে কূটনৈতিক মহল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here