পাকিস্তানে গুরুদ্বারকে মসজিদে পরিণত করা হচ্ছে! তীব্র প্রতিবাদ জানালো ভারত

আমাদের ভারত, ২৯ জুলাই: পাকিস্তানের লাহোরে একটি বিখ্যাত গুরুদ্বারকে মসজিদে পরিণত করা হচ্ছে। এই উদ্যোগের তীব্র প্রতিবাদ জানালো ভারত। সোমবার পাকিস্তান হাইকমিশনারের কাছে গিয়ে এই বিষয়ে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে নয়াদিল্লি।

ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব বিবৃতি দিয়ে বলেছেন, “লাহোরের গুরুদ্বার শাহিদি আস্থানকে মসজিদে পরিণত করা হচ্ছে বলে খবর রয়েছে। লাহোরের নৌলাখা বাজারে অবস্থিত এই গুরুদ্বারের সঙ্গে শহীদ ভাই তোরু সিংয়ের স্মৃতি জড়িত। কিন্তু এই গুরুদ্বারকে শাহিদগঞ্জ মসজিদে পরিণত করার উদ্যোগ নিয়েছে পাকিস্তান। ভারত এই কাজের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে।”

আকালি দলের মুখপাত্র টুইট করে লিখেছেন, চরমপন্থিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া দরকার। তার কথায় পাকিস্তানের চরমপন্থীরা শাহিদ ইস্থান সম্পূর্ণ ধ্বংস করে ফেলতে চায়। এই প্রচেষ্টা মৌলিক মানবাধিকারের বিরোধী। কোন ব্যক্তিকে ধর্মাচরণের স্বাধীনতা থেকে বঞ্চিত করা যায় না। শাহিদি আস্থানকে বেআইনি দখলদার থেকে মুক্ত করতে ব্যবস্থা গ্রহণ করুন। গুরুদ্বার শাহিদ আস্তান ভাই তোরু জির একটি ঐতিহাসিক স্থান। ১৭৪৫-এ এখানে নিজের প্রাণ বিসর্জন দিয়েছিলেন তিনি। শিখ ধর্মাবলম্বীদের কাছে এটি অত্যন্ত পবিত্র স্থান।

লাহোরের এই গুরুদ্বারকে মসজিদে পরিণত করার উদ্যোগের প্রতিবাদ জানিয়েছে পাকিস্থানে থাকা শিখ রাও। বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র বলেছেন, “পাকিস্তানকে আমরা বলেছি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহণ করুন। তাদের ধর্মীয় স্বাধীনতা ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য রক্ষায় উদ্যোগী হন।”

সম্প্রতি একটি বুদ্ধ মূর্তি ভাঙ্গার অভিযোগ উঠেছিল পাকিস্তানের বিরুদ্ধে। ইসলামবিরোধী বলে মূর্তি ভাঙ্গার অভিযোগ ওঠে। বাড়ি তৈরি করতে গিয়ে ভিত কাটার সময় মাটির তলা থেকে বুদ্ধমূর্তি বেরিয়ে আসে। আর সেই মূর্তি ভেঙ্গে ফেলা হয় পাকিস্তানে। এই ঘটনার ভিডিও আগেই ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখোয়ার এই ঘটনা ঘটেছিল। এক মৌলবির পরামর্শে নাকি এক কন্ট্রাক্টের ওই কাজ করেছিল।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here