২০২৩ সালেই ভারত হিন্দু রাষ্ট্র ঘোষিত হবে, রাজধানী হবে বেনারস, নয়া সংবিধানের খসড়া রচনা চলছে

আমাদের ভারত, ১৪ আগস্ট:
সংবিধানকে বদলে ফেলে ভারতকে হিন্দু রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষণার প্রস্তুতি চলছে। নয়া সংবিধান তৈরির কাজ চলছে। খসড়া তৈরি হয়েছে সেই নতুন সংবিধানের। এই কাজের উদ্যোক্তা বারানসির শঙ্করাচার্য পরিষদ নামে একটা সংগঠন। দেশের একাধিক সংবাদ মাধ্যমে এই খবর প্রকাশিত হয়েছে।

প্রকাশিত প্রতিবেদনগুলি অনুযায়ী পরিষদ দাবি করেছে, ২০২৩ সালের মাঘ মেলা উপলক্ষে প্রয়াগরাজের ধর্ম সংসদের ঘোষণা করা হবে সেই সংবিধানের। যে সংবিধান অনুযায়ী ভারতে ভোটাধিকার থাকবে শুধু হিন্দুদের। বাকি ধর্মের প্রতিনিধিরা দেশে থাকতে পারবেন, তাদের অন্যান্য অধিকার থাকবে। কিন্তু ভোট তারা দিতে পারবেন না।

সংবাদ মাধ্যমগুলোতে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী একদল সাধুসন্ত এবং বিশিষ্টজন মিলে হিন্দু রাষ্ট্রের রূপরেখা তৈরি করছেন। গত ফেব্রুয়ারিতে সংগঠনের উদ্যোগে যে ধর্ম সংসদ হয়েছিল সেখানে আলাদা সংবিধান তৈরির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। সংগঠনের একটি দল সেই কাজ করছে। শঙ্করাচার্য পরিষদের সভাপতি স্বামী আনন্দস্বরূপ বলেছেন, মোট ৭৫০ পাতার সংবিধান তৈরি হবে। এখন পুঙ্খানুপুঙ্খ আলোচনা চলছে তা নিয়ে। এই আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন ধর্মীয় পণ্ডিত এবং বিশেষজ্ঞরা। তার ভিত্তিতে সংবিধানের অর্ধেক পৃষ্ঠা প্রকাশ্যে আনা হবে ২০২৩-র মাঘ মেলায়। সেখানে শিক্ষা, নিরাপত্তা, আইন ব্যবস্থা, ভোটদান সহ বেশ কিছু বিষয় নিয়ে বত্রিশ পাতা খসড়া তৈরি হয়েছে বলেও জানিয়েছেন আনন্দস্বরূপ।

এই বিষয়গুলো জানাতে গিয়ে তিনি আশা প্রকাশ করেছেন, আগামীতে একদিন বাংলাদেশ, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, শ্রীলঙ্কা, মায়ানমার একসঙ্গে এসে যাবে। পরিকল্পনা অনুযায়ী এখনকার সংসদীয় ব্যবস্থার পরিবর্তে তৈরি হবে ৫৪৩ সাংসদের ধর্মসংসদ। ব্রিটিশ আমল থেকে চলে আসা কোনো নিয়ম-কানুন কাজ করবে না এই অখণ্ড ভারতে। বর্ণাশ্রম ব্যবস্থা মেনে সব চলবে। বিচারব্যবস্থা চলবে ত্রেতা, দ্বাপর যুগের নিয়মে। শিক্ষাক্ষেত্রে ফিরে আসবে প্রাচীন গুরুকুল পদ্ধতি। দেশের সব নাগরিককে সামরিক প্রশিক্ষণ নিতে হবে বাধ্যতামূলকভাবে। কৃষিক্ষেত্র থাকবে সম্পূর্ণ করমুক্ত। একইসঙ্গে দিল্লির বদলে বেনারস হবে দেশের রাজধানী।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here