শিক্ষকদের অসম্মান! চালের বস্তা নিয়ে বিডিওর নির্দেশিকা ঘিরে মালদায় তীব্র অসন্তোষ, প্রতিবাদ সব মহলে

আমাদের ভারত, মালদা, ২১ সেপ্টেম্বর: প্রধান শিক্ষকদের দেওয়া বিডিওর চিঠি ঘিরে বিতর্ক। মিড ডে মিলের চালের বস্তা ফেরতের জন্য প্রধান শিক্ষকদের নির্দেশ দেন গাজলের বিডিও। আর এই নির্দেশে রীতিমতো ক্ষুব্ধ শিক্ষকদের একাংশ। একজন শিক্ষক বস্তা হাতে করে বিডিওর অফিসে গিয়ে ফেরত দিয়ে আসবেন, এটাকে চরম অসম্মানজনক বলে মনে করছেন শিক্ষকরা। এই নিয়ে শুরু হয়েছে তৃণমূল-বিজেপি তরজা।

মিড ডে মিলের বস্তা শিক্ষদের ফেরতের জন্য নির্দেশিকা জারি করেছেন গাজোলের বিডিও। তাতে বলা হয়েছে প্রতি মাসে যখন শিক্ষকরা চালের হিসাব দিতে আসবেন তখন খালি বস্তাগুলো সঙ্গে করে নিয়ে আসবেন। চিঠি পাওয়া মাত্র এক শিক্ষক জানান, আমরা শিক্ষকতা করতে আসি। কিছু কিছু শিক্ষককে মিডডে মিলের দায়িত্ব দেওয়া হয়। সেখানে একজন শিক্ষক বস্তা হাতে নিয়ে বিডিও অফিসে জমা দেবে এটা কখনো সম্ভব নয়। আমরা গোটা বিষয়টি নিয়ে বিডিও সাহেবের সঙ্গে আলোচনা করবো। এই নির্দেশিকা প্রত্যাহার করতে হবে।

জেলা বিজেপির সহ-সভাপতি অজয় গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, যারা কাটমানি নেয় তাদের কিছু হয় না। কিন্তু যারা সমাজ গড়ার কাজ করছে তাদের এই নির্দেশ দিয়ে অপমান করেছেন ব্লক উন্নয়ন আধিকারিক। অবিলম্বে এই নির্দেশ প্রত্যাহার করা উচিত।

বিজেপির কথায় গুরুত্ব দিতে নারাজ জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব। তবে তারাও বিরোধিতা করছে। জেলা তৃণমূলের মুখপাত্র শুভময় বসু বলেন, বিষয়টি জেলাশাসককে খতিয়ে দেখতে বলা হয়েছে কেন বিডিও এই ধরনের চিঠি দিলেন।

এই বিষয়ে গাজলের বিডিওর কোনও প্রতিক্রিয়া না পাওয়া গেলও মালদার জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্র জানিয়েছেন, চিঠিতে যে শব্দ ব্যবহার করা হয়েছে তা উচিত হয়নি। চিঠিতে কেন এই ধরনের ভাষা ব্যবহার করা হলো তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here