রেল স্টেশনের ওয়েটিং হল হবে বিমান বন্দরের লাউঞ্জের মত, পাওয়া যাবে সস্তায় পিউরিফায়েড ওয়াটার

রেল স্টেশনের ওয়েটিং হল হবে বিমান বন্দরের লাউঞ্জের মত, পাওয়া যাবে সস্তায় পিউরিফায়েড ওয়াটার

আমাদের ভারত ডেস্ক,২২ জুলাই: রেলওয়ে স্টেশনের ওয়েটিং লাউঞ্জের কথা মনে পড়লেই চোখের সামনে ভেসে ওঠে ভিড়ে ঠাসা একটি হলঘর, যার যত্রতত্র নোংরা পড়ে আছে, কিংবা ভাঙাচোরা চেয়ার পড়ে আছে। কিন্তু এখন আর সেই ছবি দেখতে হবে না যাত্রীদের। রেল স্টেশনের ওয়েটিং হলের পুরোনো ছবি মুছে ফেলতে চলেছে ভারতীয় রেল। ওয়েটিং হলের আমূল পরিবর্তন করতে চলেছে আই আর সি টি সি দেশের বিভিন্ন রেলওয়ে স্টেশনে ইতিমধ্যেই এক্সিকিউটিভ লাউঞ্জ তৈরির পরিকল্পনা তৈরি।

ইতিমধ্যেই দেশের তিন রেলওয়ে স্টেশনে এই এক্সিকিউটিভ লাউঞ্জ তৈরির কাজ শেষ করে তা যাত্রীদের জন্য খুলেও দেওয়া হয়েছে। ওই তিন রেলওয়ে স্টেশন গুলি হল আমেদাবাদ, তিরুপতি ও জয়পুর রেলওয়ে স্টেশন।

ভারতীয় রেলের এক অধিকারিক সূত্রে জানা গেছে ,আই আর সি টি সি এক্সিকিউটিভ লাউঞ্জ ব্যবহার করার জন্য ৫০ টাকা শুল্ক নির্ধারিত করেছে। যে কোনো ক্লাসের যাত্রী ৫০ টাকার বিনিময়ে এই অত্যাধুনিক সুবিধাযুক্ত এক্সিকিউটিভ লাউঞ্জ ব্যবহার করতে পারবেন। ওই আধিকারিক জানান এই এক্সিকিউটিভ লাউঞ্জে একটি ওপেন কিচেনও তৈরি করা হয়েছে। যেখানে খুব কম দামে খাবারও পাবে যাত্রীরা।

ওই তিন স্টেশন থেকে পজিটিভ ফিডব্যাক পাওয়ার পরই আইআরটিসি দেশের অন্যান্য রেলওয়ে স্টেশনেএক্সিকিউটিভ লাউঞ্জ তৈরি করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। এই এক্সিকিউটিভ লাউঞ্জগুলিতে বিমানবন্দরের মত সমস্ত সুবিধা পাওয়া যাবে। এমনকি এই লাউন্স থেকে টিকিট বুকিং ও টুর প্যাকেজ বুকিং-এর সুবিধাও পাবেন যাত্রীরা।

প্রায়শই দেখা যায় রেলযাত্রীরা স্টেশনে থাকা পানীয় জলের কল থেকে জল খাওয়া এড়িয়ে যান। স্টেশনের জল দূষিত বলেই তারা খেতে চান না বেশিরভাগ যাত্রী। তাই সেই কথা মাথায় রেখেই অত্যন্ত কম দামে আর ও প্রযুক্তিতে পিউরিফাইড করা পানীয় জলের ব্যবস্থা শুরু করতে চলেছে রেল কর্তৃপক্ষ। এই জলের জন্য লিটার পিছু ৫ টাকা করে নেবে রেলওয়ে দপ্তর।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

17 − seven =