গঙ্গাজলে করোনা নির্মূল সম্ভব! কী বলছে আইসিএমআর

চিন্ময় ভট্টাচার্য, আমাদের ভারত, ৮ মে: গোমূত্র, গোবরের অধ্যায় শেষ। এবার গঙ্গাজলকে করোনার প্রতিষেধক বলে অনেকে জল্পনা শুরু করেছিলেন। সেই জল্পনায় যোগ দিয়েছিল কেন্দ্রীয় জলশক্তি মন্ত্রকও। তাতেই জল্পনা মাত্রা ছাড়ায়। শুধু জল্পনা নয়, জলসম্পদ মন্ত্রক এই সম্ভাবনা খতিয়ে দেখতে গঙ্গাজল নিয়ে পরীক্ষা করে দেখার আর্জি জানিয়েছিল ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর)-কে। আইসিএমআর অবশ্য প্রস্তাব পেয়েই পত্রপাঠ তা খারিজ করে দিয়েছে। জানিয়েছে, গঙ্গাজল নিয়ে তারা কোনও ডাক্তারি পরীক্ষা করতে রাজি নয়।

আইসিএমআরের ইভ্যালুয়েশন অফ রিসার্চ প্রোপোজাল কমিটির প্রধান ডা: গুপ্তা এই সম্পর্কে জানিয়েছেন, গঙ্গাজলের ভাইরাস প্রতিরোধের ক্ষমতা নেই। এই সব জল্পনার কোনও বৈজ্ঞানিক ভিত্তিও নেই। তাই এই নিয়ে হঠাৎ করে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল করা অসম্ভব। ফলে আপাতত গঙ্গাজল দিয়ে করোনার প্রতিষেধক তৈরির কোনও পরীক্ষা করাও সম্ভব না।

আইসিএমআর একথা বললেও গঙ্গাজলের বিশেষ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা আছে বলে অনেকে মনে করেন। কিন্তু আইসিএমআর বৈজ্ঞানিক প্রমাণ ছাড়া লোকবিশ্বাসে ভর করতে নারাজ। পুজো-অর্চনায় এবং শুদ্ধিকরণে গঙ্গাজল ব্যবহৃত হলেও তা ভাইরাস দমনে সাহায্য করতে পারে বলে এখনও বৈজ্ঞানিক বিশ্লেষণ মেলেনি। বরং লকডাউনের আগে পর্যন্ত গঙ্গার দূষণ যে হারে বেড়েছিল, তাতে গঙ্গাজল পান করলে বা গঙ্গায় স্নান করলে নানা রোগ হওয়ার সম্ভাবনা ছিল। এমনই মত পোষণ করত স্বাস্থ্যমহল। তাই করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধকের মত গুরুতর বিষয়ে কেবল লোকবিশ্বাসের ওপর ভিত্তি করে গঙ্গাজল নিয়ে কোনও পরীক্ষা করতে নারাজ বলেই স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন আইসিএমআরের কর্তারা।

এর আগে রটেছিল, গোমূত্র পান করলে এবং গোবর সেবন করলে বা গায়ে মাখলে করোনা হবে না। দেশে করোনা সংক্রমণের শুরুতে এইসব জল্পনা শুরু হয়েছিল। এমনকী, সেই জল্পনার ওপর নির্ভর করে গোমূত্র পান সভার আয়োজনও করা হয়েছিল দিল্লি-সহ দেশের বিভিন্ন জায়গায়। যদিও তার কোনও বৈজ্ঞানিক ভিত্তি মেলেনি। বরং অতিরিক্ত গোমূত্র পান করার ফলে অসুস্থ হয়ে পড়ার অভিযোগ উঠছিল। শুধু তাই নয়, গোবর গায়ে মাখার পরও বিভিন্ন ব্যক্তি করোনা সংক্রমিত হয়েছেন, এমন খবরও মিলেছিল। তার পর বেশ কিছুদিন এমন জল্পনা বন্ধ থাকার পর গঙ্গাজলে করোনা দূর হওয়া নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছিল।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here