বিসর্জিত দুর্গার মাটি নিয়ে জগদ্ধাত্রীর আবাহন মেদিনীপুরের জমিদার বাড়িতে

জে মাহাতো, মেদিনীপুর, ১৬ অক্টোবর:
মেদিনীপুরের কংসাবতী নদীতে বিসর্জন হওয়া দেবী দুর্গার মাটি নিয়ে শহরের মির বাজারের ঘোষ বাড়ির জগদ্ধাত্রীর আবাহন হয়েছে শুক্রবারl পৌরাণিক মতে দেবী দুর্গার আরএক রূপ জগদ্ধাত্রীl হেমন্ত কালে তাঁর আগমন বলে জগদ্ধাত্রীর অন্য নাম হৈমবতীl বিশেষত বঙ্গদেশেই তাঁর পুজো প্রচলন রয়েছেl

বাংলায় প্রথম এই পুজো শুরু করেন নদীয়ার রাজা কৃষ্ণচন্দ্রl সেইজন্যই কৃষ্ণনগরের জগদ্ধাত্রী উৎসব জগৎ বিখ্যাতl এরপর হুগলির চন্দননগরের পুজোও সমধিক প্রসিদ্ধl ১৭৫২ খ্রিস্টাব্দে মেদিনীপুরে কর্মসূত্রে আসেন আরামবাগের জমিদার দ্বারিকানাথ ঘোষl তিনি মেদিনীপুর শহরের কঙ্কাবতী ও তার পাশাপাশি এলাকায় বেশ কিছু জমি কিনে জমিদারি শুরু করেন এবং এখানেও দুর্গাপূজা শুরু করার সিদ্ধান্ত নেনl কিন্তু তাদের পারিবারিক পুরোহিত একই পরিবারের শরিক  হওয়ায় দু’জায়গায় দুর্গাপূজা করতে বারণ করেনl কিন্তু দেবী দুর্গারই আরএক রূপ জগদ্ধাত্রী পূজা করার নিদান দেনl ১৮৫২ খ্রিস্টাব্দ থেকে তিনি পূজা শুরু করেনl ২৭০ বছরের সেই পুজো আজও প্রাচীনতম রীতিনীতি মেনে মির বাজারের ঘোষ বাড়িতে হয়ে আসছেl

প্রথা মেনে দুর্গা প্রতিমা বিসর্জনের পর হৈমবতীকে আহবান জানানো হয়েছেl দুর্গার শরীরের মাটি ছুঁয়ে হৈমবতীর মূর্তি গড়ার কাজ শুরু হয়েছে কাল থেকেইl গতকাল কংসাবতী নদীতে বিসর্জন দেওয়া এক বনেদি পরিবারের দুর্গা প্রতিমার মাটি নিয়ে আসেন ঘোষ বাড়ি পুরুষ-মহিলারাl এরপর প্রাচীন আচার সংস্কারের পরম্পরা মেনে জগদ্ধাত্রীর কাঠামোতে সেই মাটি ছুঁইয়ে মূর্তি গড়ার সূচনা হয়েছেল

১৩ নভেম্বর নবমীর দিন ঘোষ বাড়িতে জগদ্ধাত্রী পুজো
হবেl এই পুজোর বিশেষত্ব, পূজোর সমস্ত ধুপ বাড়িতেই তৈরি করা হয় এবং পুরোহিতসহ যতগুলি শাড়ি লাগে সবগুলোর রং করেন বাড়ির মহিলারাl পুজোর দিন ছাগ বলি দেওয়া হয় বলে ঘোষ পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেনl

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here