হিজাব সংস্কৃতি নষ্ট করে মুসলিম মহিলাদের ভোটে টিকিট দেওয়া ইসলাম বিরোধী, দাবি জামা মসজিদের ইমামের

আমাদের ভারত, ৬ ডিসেম্বর: মুসলিম মহিলাদের ভোটের টিকিট দেওয়া ইসলাম ধর্মের বিরোধী বলে দাবি করেছেন গুজরাতের আমেদাবাদের জামা মসজিদের শাহী ইমাম।গুজরাতের ওই ধর্মগুরুর নাম সাব্বির আহমেদ সিদ্দিকি।

তার অভিযোগ মহিলাদের ভোটের টিকিট দিয়ে ইসলাম ধর্মকে দুর্বল করে দেওয়ার চেষ্টা চলছে। একটি সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, যারা মুসলিম মহিলাদের ভোটে দাঁড় করানোর বা ভোটের প্রার্থী হওয়ার টিকিট দেন তারা আসলে এই ধর্মকে দুর্বল করে দেওয়ার চেষ্টা করছেন। এ বিষয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর কাছে তার প্রশ্ন, প্রার্থী হওয়ার জন্য কি পুরুষ পাওয়া যাচ্ছে না? যে মহিলাদের টিকিট বিতরণ করতে হচ্ছে।

গুজরাটে বিধানসভা নির্বাচনের ভোটদানের প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে। বৃহস্পতিবার ফল প্রকাশ। এরই মধ্যে রাজ্যে শাহী ইমামের মহিলাদের ভোটে টিকিট পাওয়া নিয়ে মন্তব্যে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে।

যদিও ইমাম বিতর্ককে পাত্তা না দিয়ে জানিয়েছেন মহিলাদের ভোটের টিকিট দিলে ইসলাম ধর্ম দুর্বল হবে। কারণ মহিলারা যদি বিধায়ক সাংসদ কিংবা পৌরসভার কাউন্সিলর হয়ে যান সেই মেয়েরা হিজাব পরবেন কিভাবে? ইমামের প্রশ্ন কর্ণাটকের হিজাব আন্দোলনের কি হবে? তখন আমরা যদি সরকারের কাছে মেয়েদের হিজাব পরানোর কথা বলি তখন তো বলা হবে আপনাদের মেয়েরা পার্লামেন্টে বসেছেন, বিধানসভায় বসেছেন, পৌরসভা বোর্ডের সদস্য হচ্ছেন। তখন আমরা হিজাব সাংস্কৃতি বাঁচাবো কিভাবে?

রাজনৈতিক দলগুলি কেন মহিলাদের টিকিট বিতরণ করছে? তার ব্যাখা দিয়ে তিনি বলেন, “আসলে ওরা ভাবছে মহিলারাই এখন সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করে। তাই মহিলাদের নিয়ন্ত্রণ করতে পারলে গোটা পরিবারকে নিয়ন্ত্রণ করা যাবে। মহিলাদের ভোটে টিকিট দেওয়ার আর কোনো কারণ আমি খুঁজে পাচ্ছি না।”

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here