কেউ চিনাদ্রব্য কিনলে তার পা ভেঙ্গে দেওয়ার বিধান দিলেন জয় বন্দ্যোপাধ্যায়

আমাদের ভারত, হাওড়া, ১৮ জুন: চিন যেভাবে আমাদের দেশের সৈনিকদের উপর বর্বরোচিত আক্রমণ করে দেশের কুড়িজন সৈনিককে শহিদ করেছে তাতে সকলের উচিত চিনাদ্রব্য বয়কট করা। তা সত্ত্বেও যদি কেউ চিনাজিনিস কেনে তাহলে মেরে তার পা ভেঙ্গে দিন। বৃহস্পতিবার উলুবেড়িয়ায় বীর শহিদদের স্মৃতি তর্পণ করতে গিয়ে এই কথা বলেন বিজেপি নেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন জয় বলেন আমার দাদু একজন মিলিটারি সৈনিক ছিলেন এবং আমার বাবা একজন পুলিশকর্মী সুতরাং দেশাত্মবোধ আমার রক্তে মিশে আছে। আর সেই কারণেই ভারতের বীর সৈনিকদের মৃত্যু আমার হৃদয়কে বেদনাদায়ক করে তুলেছে। জয় বলেন দেশের সৈনিকদের শহিদ হওয়ার বিষয়টি শোনার পর থেকেই আমি ঘুমোতে পারিনি। এদিন জয় বলেন এত কিছুর পরেও যদি কারর বাড়িতে চিনাদ্রব্য দেখতে পান তাহলে ভারত মায়ের সন্তান হিসেবে তার বাড়িটাও ভেঙ্গে দিন।’

তিনি বলেন কুড়ি জন সেনা শহিদ হওয়ার পর আজ থেকে আর কোন চিনাদ্রব্য যাতে কেউ ক্রয় করতে না পারেন সেদিকে সবাইকে লক্ষ্য রাখতে হবে। জয় বলেন, ভারত শান্তিপ্রিয় দেশ কিন্তু যদি কেউ খোঁচা দেয় তাহলে আমরা এমন ভাবে খোঁচা দিয়ে ঘা করে দেবো যাতে সেই ঘা কোনওদিন সারতে না পারে। তিনি বলেন, ভারতের এখন অনেক বন্ধু দেশ হয়েছে তা সত্ত্বেও চিন ইচ্ছে করে বিবাদ বাধাতে চাইছে। তার কারণ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী স্বদেশীর দ্রব্য ব্যবহারের ডাক দিয়েছেন, চিনাদ্রব্য বয়কটের ডাক দিয়েছেন– যাতে চিনের কয়েক হাজার কোটি টাকার ব্যবসা নষ্ট হয়ে যাবে।

জয় বলেন, কৈলাস বিজয়বর্গীয় বলেছেন দেশীয় জিনিসকে আরো মসৃণ করে তুলতে হবে তাহলে চিনের দ্রব্য আমাদের কাছে দাঁড়াতে পারবেনা। আর যদি চিনের বাজার নষ্ট হয়ে যায় তাহলে তারা ভাতে মরবে। এদিন জয় বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ভারত এখন বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী দেশ আর তার প্রধান কারণ দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি বলেন, একজন অরাজনৈতিক ব্যক্তি হিসেবে ২০১৪ সালে মোদীজির আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে দেশ সেবার কাজ করার জন্য বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলাম। জয় বলেন, চিন যেন ভুলে না যায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী এখন নরেন্দ্র মোদী। যদি চিন বেশি বাড়াবাড়ি করে তাহলে মোদীজি চিনকে আলপিন বানিয়ে ছেড়ে দেবে।

এদিন উলুবেড়িয়ায় শহীদ তর্পণ অনুষ্ঠানে চিনের প্রেসিডেন্টের কুশপুতুল দাহ করা হয়। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির হাওড়া গ্রামীণ জেলার সভাপতি শিব শংকর বেজ সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here