বাগনানে মহিলা খুনের ঘটনায় অভিযুক্ত তৃণমূল নেতার বাড়ি ভাঙ্গচুরের ঘটনায় মন্ত্রী অরূপ রায়কেই দায়ী করলেন জয়

আমাদের ভারত, হাওড়া, ২৫ জুন: বাগনানের গোপালপুর গ্রামে মেয়ের সম্মান রক্ষা করতে গিয়ে মায়ের মৃত্যুর ঘটনায় অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা কুশ বেরার বাড়ি ভাঙ্গচুরের ঘটনার জন্য রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ রায়কেই দায়ী করলেন বিজেপি নেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার বিকেলে বাগনান থানায় পুলিশ আধিকারিকদের সঙ্গে দেখা করতে এসে মন্ত্রীর বিরুদ্ধে এই অভিযোগ করেন জয়।

এদিন জয় অভিযোগ করে বলেন, বুধবার বিকেল পর্যন্ত গোপালপুর গ্রামের পরিস্থিতি শান্ত থাকলেও রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ রায় মন্তব্যে করার পরেই গ্রামবাসীরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে এবং বৃহস্পতিবার অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা কুশ বেরার বাড়ি ভাঙ্গচুর করে। এদিন জয় দাবি করেন, যদি অরুপ রায় এই রকম একটা বেফাঁস মন্তব্য না করতেন তাহলে গ্রামের পরিস্থিতি এতটা উত্তপ্ত হয়ে উঠত না। এদিন জয় মহিলা খুনের ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশের প্রশংসা করে বলেন, ঘটনার একদিনের মধ্যেই দুই অভিযুক্তকে পুলিশ গ্রেফতার করে ভালো কাজ করেছে। পুলিশ যেখানে ভালো কাজ করবে সেখানে যে রকম আমরা পুলিশের প্রশংসা করব অন্যদিকে যেখানে পুলিশ খারাপ কাজ করবে সেখানে আমরা তাদের নিন্দা করব। জয় বলেন, পুলিশ আধিকারিকরা কথা দিয়েছে দোষীরা কঠোর শাস্তি পাবে।

বৃহস্পতিবার অভিযুক্তর আত্মীয়র ধারালো অস্ত্রে গ্রামের এক যুবক গুরুতর জখম হওয়া প্রসঙ্গে জয় বলেন, পুলিশ আধিকারিক অভিযুক্তকে দ্রুত গ্রেপ্তারের আশ্বাস দিয়েছেন। অন্যদিকে বিজেপি কর্মীরা বিরোধীদের হাতে আক্রান্ত হতে পারে এই আশঙ্কায় জয় বলেন, বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়েছে পুলিশ আধিকারিকদের বিষয়টি দেখতে বলা হয়েছে।

প্রসঙ্গত মঙ্গলবার রাতে গোপালপুর গ্রামে মেয়ের সম্মান বাঁচাতে গিয়ে মায়ের খুন হওয়ার ঘটনার পরেই আসরে নামে বিজেপি। বুধবার দুপুরে সাংসদ লকেট চ্যাটার্জি ও সৌমিত্র খাঁ বাগনানে আসার পাশাপাশি অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবিতে ৬ নং জাতীয় সড়ক অবরোধ করে। পরে একপ্রকার চাপে পড়েই বিকেলে পুলিশ দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে। এরপর বৃহস্পতিবার সকালে গ্রামে যান বিজেপির রাজ্য মহিলা মোর্চার সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পাল এবং বিকেলে বাগনানে আসেন বিজেপি নেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায়।

রাজনৈতিক মহলের ধারণা বিধানসভা নির্বাচনের আগে প্রশাসনকে চাপে রাখতেই বিজেপির এই সমস্ত হেভিওয়েট নেতা নেত্রীদের বাগনানে আসা।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here