করোনা পরবর্তী সময়ে জীবন আগের ছন্দে নাও ফিরতে পারে, উদ্বেগ উসকে বললেন মার্কিন গবেষক

আমাদের ভারত, ৯ মার্চ :করোনা আসার আগে যে ছন্দে আমাদের জীবন কাটছিল তার পতন ঘটতে পারে। আমাদের চেনা পরিচিত খাতে নাও হইতে পারে করোনা পরবর্তী সময়ের জীবন।এমনই উদ্বেগ উসকে দিলেন দিয়ে সতর্ক করলেন এক মার্কিন গবেষক। এই একই কথা বুধবার সর্বদলীয় বৈঠকে শোনা গিয়েছিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মুখেও। তিনি বলেছেন, করোনা পরবর্তী সময়ে মানুষের জীবনে এক বিরাট পরিবর্তন আসতে চলেছে।

মার্কিন বিজ্ঞানী ডক্টর অ্যান্টনি ফউসি হোয়াইট হাউসে হাওয়া একটি আলোচনায় স্পষ্ট বলেছেন, “বিশ্বের বিভিন্ন দেশ গুলিতে আগের মত সমাজ ব্যবস্থা থাকলেও করোনার আগের পরিচিত বিশ্ব আর থাকবে না। আপনি যদি সেই পরিচিত খাতে ফিরতে চান মনে রাখুন আর কোন দিন তা সম্ভব নাও হতে পারে।”

মার্কিন গবেষক সতর্ক করে বলেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়া বলতে যদি ভাবেন করোনি ভাইরাস আসার আগের পৃথিবীতে ফিরে যাব আমরা , তাহলে আমি মনে করি তেমনটা আর হচ্ছে না, যদি না সমগ্র জনসংখ্যাকে সুরক্ষিত করতে পারি। তবে আমি মনে করি একটি প্রতিষেধক এই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পারে।”

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য বুধবার সর্বদলীয় বৈঠকও ঠিক একই কথা শোনা গিয়েছিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে ও। তিনি ও মন্তব্য করেছেন করোনা ভাইরাসের আগের ও পরের জীবন আর এক রকম থাকবে না। এবার থেকে সবার জীবনেই করোনা পূর্ববর্তী ও পরবর্তী অধ্যায় পৃথকভাবে চিহ্নিত হবে। প্রত্যেকের সামাজিক, ব্যক্তিগত, আচরণমূলক জীবনে এক বিরাট পরিবর্তন আসতে চলেছে বলেও জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী।

বিশেষজ্ঞদের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, চলতি সপ্তাহে করোনার সবচেয়ে ঘাতক পর্যায় প্রবেশ করেছে আমেরিকা। অর্থাৎ এই সপ্তাহে আমেরিকায় সবচেয়ে বেশি মানুষের প্রাণহানি হতে পারে।

এদিকে করোনার প্রতিষেধক খুঁজতে, গোটা বিশ্বে চলছে গবেষণা। তারই সঙ্গে বিশ্বজুড়ে করোনার প্রকোপ উত্তরোত্তর বাড়ছে। চিন, ইতালি, স্পেন, ব্রিটেন, আমেরিকার পর জার্মানি ও ফ্রান্সের অবস্থাও সঙ্গিন। জার্মানিতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ১৪ হাজার। মৃতের সংখ্যা ২৫০০ । ফ্রান্সে ১০ হাজার ৮৬৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। করোনা ভাইরাস আক্রান্ত ১ লক্ষ ১৩ হাজার । বৃটেনে ৭ হাজারেরও বেশি মৃত্যু হয়েছে মানুষের করোনায়। এখনো পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাস ৮৮ হাজারেরও বেশি মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here