মাধ্যমিক উত্তীর্ণ কিশোরীকে ধর্ষণ করে খুনের অভিযোগ, দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে গাড়িতে আগুন লাগিয়ে জাতীয় সড়ক অবরোধ স্থানীয়দের

স্বরূপ দত্ত, আমাদের ভারত, উত্তর দিনাজপুর, ১৯ জুলাই: মাধ্যমিক উত্তীর্ণ এক কিশোরীর মৃতদেহ উদ্ধারকে ঘিরে ব্যাপক উত্তেজনা ও চাঞ্চল্য ছড়াল। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার চোপড়া থানার সোনাপুর গ্রামপঞ্চায়েতের বসলামপুর এলাকায়।

মৃতা কিশোরীর পরিবার ও স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, দুষ্কৃতীরা ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করে খুন করে ফেলে রেখে গিয়েছে। ঘটনার প্রতিবাদে ও দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে স্থানীয় বাসিন্দারা চোপড়ায় ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কে গাড়িতে আগুন জ্বালিয়ে পথ অবরোধ বিক্ষোভে শামিল হয়। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, ঘটনাস্থল থেকে দুষ্কৃতীদের মোবাইল ফোন সাইকেল ও পরিচয়পত্র মিলেছে। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে চোপড়া থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী। মৃতা কিশোরী এবছই মাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছিল। পুলিশ কিশোরীর মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে পাঠানোর পাশাপাশি ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার সকালে চোপড়া থানার সোনাপুর গ্রামপঞ্চায়েতের বসলামপুর এলাকায় এক কিশোরীর মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, গতকাল রাতে কিশোরীকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা। তারপর তাকে ধর্ষণ করে খুন করে। এই ঘটনায় ক্ষোভে ফেটে পড়েন বসলামপুর গ্রামের বাসিন্দারা। নারকীয় এই ঘটনার প্রতিবাদে এবং দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে রাজ্য সড়ক ও ৩১ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন গ্রামের বাসিন্দারা। রাস্তায় লাঠিসোঁটা নিয়ে গাড়িতে আগুন জ্বালিয়ে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভে শামিল হন গ্রামের কয়েকশো বাসিন্দা। বিক্ষোভকারীদের দাবি, যতক্ষণ অভিযুক্তদের গ্রেফতার না করা হবে ততক্ষণ ৩১ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ চলবে।

এদিকে ঘটনার খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে ছুটে আসে চোপড়া থানার বিশাল পুলিশবাহিনী। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে পাঠানোর পাশাপাশি ঘটনার তদন্তে নেমেছে চোপড়া থানার পুলিশ।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here