“লকডাউনে বিপর্যস্ত মানুষকে আগামী তিনমাস নূন্যতম ২ হাজার টাকা দেওয়া হোক”

আমাদের ভারত, ২৫ এপ্রিল :
মুখ্যমন্ত্রী ও রাজ্যপালের পত্রযুদ্ধ চলছে। তার মধ্যে বাম ও কংগ্রেস লকডাউনে কর্মহীন মানুষের জন্য আর্থিক প্যাকেজের দাবি জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে চিঠি দিলেন।
লকডাউনের কারণে রোজগারহীনদের জন্য রাজ্য সরকার ঘোষিত প্রচেষ্টা প্রকল্পের আওতায় আগামী তিনমাস নূন্যতম ২ হাজার টাকার আর্থিক সহায়তা দেওয়ার দাবি করল বাম-কংগ্রেস।

এর আগেই করোনা পরিস্থিতিতে বিপর্যস্ত মানুষের জন্য সর্বদলীয় বৈঠকে নূন্যতম ২ হাজার টাকার আর্থিক প্যাকেজের দাবি জানিয়েছিলেন তারা। এরপর সরকার অসংগঠিত শ্রমিকদের জন্য প্রচেষ্টা প্রকল্প চালু করে। কিন্তু এই প্রকল্পে সুবিধা পেতে মানুষকে বেশ কিছু সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। তাই সেই সব সমস্যার সমাধানের প্রস্তাব সহ দু’হাজার টাকার দাবি জানিয়ে যুগ্ম ভাবছ মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি দিল রাজ্যের বাম ও কংগ্রেসের পরিষদীয় দল।

করণা মোকাবিলায় দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। মহামারী মোকাবিলায় লক ডাউনের প্রয়োজনীয়তা অনস্বীকার্য। তবে এই লকডাউনের কারণে গরিব মানুষ, কৃষক, শ্রমজীবী, নিম্নবিত্ত সহ প্রায় সকলেই অসুবিধার মধ্যে পড়েছেন। গৃহবন্দি সকলেই। লকডাউনের অংশ হিসেবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চিকিৎসা ব্যবস্থার সম্প্রসারণ অত্যন্ত জরুরি। একই সঙ্গে জরুরি গৃহবন্দি মানুষের কাছে খাদ্য ও আনুষঙ্গিক জরুরি বিষয় গুলি পৌঁছে দেওয়াও বলে চিঠিতে দাবি করেছেন তারা।

মুখ্যমন্ত্রীকে লেখা চিঠিতে
বাম ও কংগ্রেসের তরফে বলা হয়েছে, মানুষ যথেষ্ট বিপদে রয়েছে এখন। এক মাসেরও বেশি সময় কাজ বন্ধ। মানুষের হাতে পয়সা নেই। ওষুধ সহ জিনিসের দাম ঊর্ধ্বমুখী। বাজার খোলাঅথচ জরুরী এবং প্রয়োজনীয় জিনিস কেনার মত সামর্থ্য নেই। ক্ষেতমজুর দিনমজুর অসংগঠিত শ্রমিক, অস্থায়ী, ক্যাজুয়াল,চুক্তিভিত্তিক শ্রমিক কর্মচারী, সাধারন প্রাইভেট টিউটর, ছোট দোকান ব্যবসায়ীরা মারাত্মক সংকটের মধ্যে পড়েছেন। তাদের সংসার বাঁচানোই দায়। তাই এদের জন্য মাসে ন্যূনতম ৭৫০০ হাজার টাকা প্যাকেজের দাবি করা হয়েছিল কেন্দ্র সরকারের কাছে। কিন্তু কেন্দ্র সরকার বাস্তবে কিছুই করেনি। তাই পরিবারগুলি গ্রাসাচ্ছাদনের জন্য মাসিক ন্যূনতম ২ হাজার টাকা করে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে প্যাকেজ দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন তারা।

লক ডাউনের এই সংকট জনক অবস্থায় রাজ্য সরকার অসংগঠিত শ্রমিকদের জন্য প্রচেষ্টা নামে একটি প্রকল্প চালু করেছেন। তার জন্য চিঠিতে ধন্যবাদ জানিয়েছে বাম ও কংগ্রেস। তবে এই প্রচেষ্টা প্রকল্পের অন্তত তিনটি সংশোধন প্রয়োজন বলে তারা দাবি করেছেন। তারা বলেছেন ব্যক্তিগতভাবে বিডিও, এসডিও বা কোন সরকারি দপ্তরে দূরত্ব ও ভিড়ের কারণে দরখাস্ত জমা দেওয়া বা নেওয়া খুবই অসুবিধাজনক ও সঠিকও নয়।তাছাড়া লকডাউন থাকার কারণে বহু জায়গায় জেরক্সের দোকান বন্ধ। তাই রাজ্য সরকারের অন্যান্য বহু প্রকল্পের মতো অ্যাপসের মাধ্যমে অনলাইনে প্রচেষ্টা প্রকল্পের দরখাস্ত জমার ব্যবস্থা করা হোক বলে দাবি করেছেন বাম ও কংগ্রেস।

লক ডাউন পরিস্থিতিতে প্রচেষ্টা একটি বিশেষ সহায়ক কর্মসূচি।তবে এস এস ওয়াই, এন এস এ পি ইত্যাদিতে যুক্তদের এই প্রকল্পে বাদ দিলে প্রচেষ্টা প্রকল্পের উদ্দেশ্য অর্থহীন হয়ে যায় বলেও জানিয়েছেন তারা। তাই তারা দাবি করেছেন এই প্রকল্পটি বিপর্যস্ত সবার জন্য কার্যকর করা হোক। জরুরীএই প্রকল্পে ন্যূনতম তিন মাসের জন্য মাসিক অন্তত দুই হাজার টাকা করে আর্থিক প্যাকেজ দেওয়ার ব্যবস্থা করা হোকবলে দাবি করা হয়েছে চিঠিতে।

একই সঙ্গে সরকারি নির্দেশিকা আংশিক সংশোধন করে এই আর্থিক প্যাকেজ প্রদানের কাজ দ্রুত নিশ্চিত করা হোক বলেও দাবি করা হয়েছে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here