করোনা আতঙ্কে নয়া সংযোজন, হুগলীতে যুবকের মৃত্যু নিয়ে প্রশ্ন তুললেন লকেট

আমাদের ভারত, হুগলী, ৩ এপ্রিল: অন্য রাজ্যে কর্মরত এক যুবকের মৃত্যুর ঘটনা ঘটল হুগলীর চুঁচু্ড়া ইমামবাড়া জেলা হাসপাতালে। হাসপাতালের তথ্য নিউমোনিয়ায় মৃত্যু হয়েছে যুবকের। মৃতদেহের লালা রসের নমুনা পাঠানো হল স্কুল অফ ট্রপিক্যাল মেডিসিনে।
শুক্রবার সকালে সোশ্যাল সাইটে একটি চাঞ্চল্যকর পোস্ট করেন হুগলীর সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়।

তার তথ্য অনুযায়ী হুগলীর ধনিয়াখালীর হবিবপুর গ্রামের বছর সাতাশের এক যুবক গত ১৬ মার্চ পাটনা থেকে ফেরেন। কয়েকদিন আগে থেকেই তার জ্বর হয় বলে খবর। গত ২৫ মার্চ ধনিয়াখালীর গ্রামীন হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য তাকে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে চুঁচু্ড়ার ইমামবাড়া হাসপাতালে পাঠানো হয়। প্রাথমিক চিকিৎসার পর সে বাড়ি ফিরে যায়। বাড়িতে ফিরে আবার শ্বাসকষ্ট শুরু হলে গত বুধবার চুঁচু্ড়া হাসপাতালের আইসোলেশান ওয়ার্ডে তাকে ভর্তি করা হয় বলে খবর। আজ ভোরে তার মৃত্যু হয়। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েই মৃত্যু হয়েছে ওই যুবকের, প্রাথমিকভাবে জানায় জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর। গতকাল রাতেই যুবকের সোয়াব স্যাম্পেল সংগ্রহ করে রাখা হয়। আজ স্কুল অফ ট্রপিক্যালে তা পাঠানো হয় পরীক্ষার জন্য। রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত মৃতদেহ চুঁচু্ড়া হাসপাতালেই থাকবে বলে জানিয়েছে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর। মৃতের বাবা ও মাকে সিঙ্গুর ট্রমাকেয়ার কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রাখা হয়েছে। পরিবারের বাকি সদস্যদের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে নির্দেশ দেয় স্বাস্থ্য দপ্তর।

ঘটনার পরই, যুবকের মৃত্যু নিয়ে ফেসবুকে সরব হয়েছেন হুগলীর বিজেপি সাংসদ লকেট চ্যাটার্জি। লকেটের অভিযোগ, মৃত্যু নিয়ে তথ্য গোপন করছে রাজ্য সরকার। এমনকি চিকিৎসা ব্যবস্থা নিয়েও প্রশ্ন সাংসদের। তাঁর মতে এতদিন সময় পেয়েও কেন বার বার হাসপাতাল ব্যবস্থা না নিয়ে তাকে বাড়ি ফিরিয়ে দিয়েছে তার কোনো সদুত্তর নেই। এমনকি একেবারে শেষের দিকে পুলিশের গাড়ি করে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া নিয়েও সরব হন সাংসদ।

এদিকে এতদিন ওই গ্রামে এই যুবকের থাকা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন তিনি। পরীক্ষার রিপোর্টে যদি করোনার ঈঙ্গিত মেলে সেক্ষত্রে কতটা ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি হবে গোটা এলাকায় সেই প্রশ্নও তুলেছেন হুগলীর সাংসদ।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here