মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পশ্চিমবঙ্গের সবচেয়ে বড় ভাইরাস, দিনহাটায় ভোট প্রচারে গিয়ে চুড়ান্ত কটাক্ষ করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি

আমাদের ভারত, কোচবিহার, ২৬ অক্টোবর:
করোনার টিকার কার্যকারিতা নিয়ে সম্প্রতি প্রশ্ন তুলেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার তার পাল্টা দিতে গিয়ে বিজেপি সভাপতির সুকান্ত মজুমদার তাকেই পশ্চিমবঙ্গের বড় ভাইরাস বলে কটাক্ষ করলেন।

মঙ্গলবার দিনহাটায় উপ নির্বাচনের প্রচারে গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কেও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি সুকান্ত মজুমদার। তিনি বলেন, “করোনা যখন প্রথম এসেছিল তখন মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন দিল্লির দাঙ্গা থেকে চোখ ঘোরানোর জন্যই করোনার কথা বলা হচ্ছে। যে বুঝতেই পারেনা করোনা কত বড় বিপদ? কত বড় স্ট্রেন, ভাইরাস কি? যার কোনো ধারনাই নেই তারা এসব কথা বলছে।” এরপরই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সম্পর্কে তিনি বলেন, “উনিই সবথেকে বড় ভাইরাস পশ্চিমবঙ্গের।”

এরপর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দ্যেশ্যে অভিযোগের সুরে তিনি বলেন, “এ রাজ্যের রাজনীতিতে টাকা, জোচ্চুরি কাটমানির যে সংস্কৃতি তৈরি হয়েছে তার হেড হচ্ছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। বাংলা রাজনীতিকে তিনি কলুষিত করেছেন। বাংলার রাজনীতি কৃচ্ছসাধন, সততা ও সিমপ্লিসিটির মাধ্যমেই পরিচিত ছিল। কিন্তু ওনার পোশাক পরিচ্ছদ, ব্যবহারিক জীবন দেখলেই বুঝতে পারবেন উনি কিভাবে বাংলার রাজনীতিকে নষ্ট করেছেন।”

সম্প্রতি উত্তরবঙ্গের সফরে এসে করোনার টিকার কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। টিকার দুটি ডোজ নেওয়ার পরেও মানুষ কি করে করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন পরীক্ষা করে দেখার কথা বলেন তিনি। সেই প্রসঙ্গে আজ দিনহাটায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে এভাবেই সমালোচনা করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি।

দিনহাটা শহরে বিজেপি প্রার্থীর সমর্থনে প্রচার মিছিলে অংশ নেন সুকান্ত মজুমদার। তিনি ছাড়া মিছিলে ছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নিশীথ প্রামানিক, দলের সর্বভারতীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ, কোচবিহারের ৬ বিধায়ক, জলপাইগুড়ি সাংসদ জয়ন্ত রায় সহ জেলা নেতারা। মিছিল শেষে দিনহাটা পাঁচমাথা মোড়ে পথসভা করেন বিজেপি নেতারা।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here