মমতা-শুভেন্দু সৌজন্য অতীত, অধিকারী গড়ে দাঁড়িয়েই শুভেন্দুকে খোলা চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন মন্ত্রী বীরবাহা হাঁসদা

আমাদের ভারত, পূর্ব মেদিনীপুর ২৬ নভেম্বর: গতকাল শুক্রবার বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর সৌজন্য সাক্ষাৎকারের ঘটনা ছিল। আর তার ২৪ ঘন্টা কাটতে না কাটতেই সেই শুভেন্দুর গড়ে দাঁড়িয়ে তাঁকেই খোলা চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন আদিবাসী নেত্রী তৃণমূল সরকারের মন্ত্রী বীরবাহা হাঁসদা।
এগরায় তৃণমূলের সভায় দাঁড়িয়ে শুভেন্দুকে উৎখাতের ডাক দেন বীরবাহা।
ঝাড়গ্রাম বিধানসভা এলাকায় তিনি শুভেন্দুকে ঢুকতে দেবেন না বলে হুঁশিয়ারি দেন।

শুভেন্দুকে উদ্দেশ্য করে বীরবাহার হুঁশিয়ারি, “আপনি আদিবাসীদের সম্মান করতে জানেন না। আপনাকে ওপেন চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে যাচ্ছি, যদি ক্ষমতা থাকে তাহলে ঝাড়গ্রাম বিধানসভায় ঢুকে দেখান।” সেই সঙ্গে এলাকাবাসীদের উদ্দেশ্যে বীরবাহার বার্তা, “উনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পেছন থেকে যদি ছুরি মারতে পারেন, তাহলে আপনার আমার মতো খেটে খাওয়া মানুষদের পেছনে ছুরি মারতে কতক্ষণ?”

শুভেন্দুকে কটাক্ষ করে বীরবাহা জানান, “আপনি বলেছিলেন বীরবাহা হাঁসদা আমার বোন। কথা দিয়েছিলেন, চিরদিন তোমার পাশে থাকব। কিন্তু উনি কথা রাখেননি। উনি আমাকে পায়ের নীচে নামিয়ে দিয়েছেন। যে নিজের বলা কথাগুলো ভুলে যায়, নিজের পরিচিত লোকদের ভুলে যায় সেই শুভেন্দু কিভাবে সাধারণ মানুষের কথা মনে রাখবে। এই হল সেই শুভেন্দু অধিকারী যিনি ভোট এলেই গরম গরম ভাষণ দিতে ছুটে আসেন। নেতানেত্রীদের গাল দেবেন, আর আপনাদের কাছ থেকে দূরে সরে যাবেন।”

স্থানীয় বাসিন্দাদের উদ্দেশ্যে বীরবাহার আবেদন, “আগামী পঞ্চায়েতে আওয়াজ তুলব এখানে শুভেন্দু অধিকারী চলবে না, বিজেপি চলবে না। এখানে শুধু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে তৃণমূলের পতাকা উড়বে। এই প্রতিশ্রুতি এখান থেকে নিয়ে যেতে হবে। আজকের দিন থেকে শপথ নিন আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচনে এখান থেকে শুভেন্দুকে তাড়াবেন।”

একই ভাবে নিজের পুরানো ছন্দেই শুভেন্দুর উদ্দেশ্যে নানান কটুক্তি ছুঁড়ে দেন তৃণমূলের মুখপাত্র কুনাল ঘোষ। তাঁর হুঁশিয়ার, “বিরবাহা তো আজ ওপেন চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছে। বীরবাহার কাছে ক্ষমা না চেয়ে আপনি (শুভেন্দু) ঝাড়গ্রামে একবার ঢুকে দেখান। ডিসেম্বর তো আসছে, বীরবাহা পুলিশ নিয়ে যাবে না, আপনিও কেন্দ্রীয় বাহিনী ছাড়াই ঝাড়গ্রামে ঢুকে দেখান। হয়ে যাক ওপেন চ্যালেঞ্জ।”

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here