সাধারণ রোগীকে ফিরিয়ে দেওয়ায় পাঁশকুড়ার বড়মা কোভিড হাসপাতালে ব্যাপক ভাঙ্গচুর ও চিকিৎসক নিগ্রহ

আমাদের ভারত, পূর্ব মেদিনীপুর, ১২অক্টোবর : পাঁশকুড়ার বড়মা কোভিড হাসপাতালে ব্যাপক ভাঙ্গচুর ও চিকিৎসককে নিগ্রহের ঘটনায় আতঙ্কিত চিকিৎসক, নার্স, কর্মী এবং রোগীরা। শ্বাসকষ্ট নিয়ে একজন সাধারণ রোগী ভর্তি হতে এলে তাকে ফিরিয়ে দিলে রোগীর সঙ্গে থাকা লোকজন ভাঙ্গচুর এবং গন্ডগোল করে। পুলিশ এসে পরিস্থিতি সামাল দেয় এবং গ্রেফতার করে চারজনকে। রবিবার রাতে কলকাতার ১০-১২জনের একটি দল পাঁশকুড়ার একটি হোটেলে পার্টিতে যোগ দেয়। সেখানে রাত ১২টা নাগাদ একজন অসুস্থ হয়ে পড়ে। সঙ্গীরা অসুস্থ ব্যক্তিকে নিয়ে বড়মা হাসপাতালে যায়।

নিরাপত্তারক্ষীরা কোভিড হাসপাতালে সাধারণ রোগীকে ভর্তি হয় না বলে বার বার অনুরোধ করার পরও রক্ষীকে মারধর করে জোর করে আইসিইউত নিয়ে যায় সঙ্গীরা। চিকিৎসক সাধারণ ওই রোগীকে ভর্তি নিতে অস্বীকার করলে তাঁকে নিগ্রহ করা হয়। হাসপাতালে ভাঙ্গচুর চালায় কলকাতা থেকে আসা এইসব লোকজন। তারা রাজ্যের শাসক দলের শ্রমিক সংগঠনের এক নেত্রীর ঘনিষ্ঠ পরিচয় দিয়ে রীতিমতো তাণ্ডব চালায় বলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অভিযোগ। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসেন পাঁশকুড়ার বিডিও, পাঁশকুড়া থানার পুলিশ এবং কোভিড হাসপাতালের চিকিৎসক টিম যান। পুলিশ এই ঘটনায় অভিযুক্ত থাকার অভিযোগে চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে। অভিযুক্তদের আজ তমলুক মহাকুমার আদালতে তোলা হয়।

হাসপাতালের টেকনিক্যাল অফিসার দেবোপম হাজরা জানান, ১০-১২ জনের দলে বেশ কয়েকজন যুবতীও ছিলেন। প্রত্যেকেই মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন। কোভিড হাসপাতালে একজন সাধারণ রোগীকে ভর্তি নেওয়া যায় না, সেটুকু উপলব্ধি করার মতো জায়গায় তারা ছিল না। রোগীকে স্থানীয় হাসপাতালে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। পুলিশ এসে কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করেছে। আমরা নিরাপত্তার অভাব বোধ করছি।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here