মেহুল চৌকসিকে ফেরত আনতে বদ্ধ পরিকর ভারত! ডোমিনিকায় পৌছালো হল নথি সহ বিমান

আমাদের ভারত, ৩০ মে: জানা যাচ্ছে ২৮ মে শুক্রবার, দিল্লির এয়ারপোর্ট থেকে দুপুর ৩.৪৪ নাগাদ কাতার এক্সিকিউটিভের একটি বিমান মাদ্রিদ হয়ে স্থানীয় সময় ১৩.১৬ নাগাদ ডোমিনিকার ডগলাস-চার্লস এয়ারপোর্টে পৌঁছেছে। ভারত এই বিমান ভারতের পাঞ্জাব ন্যাশানাল ব্যাঙ্কের অর্থ তছরুপের মামলায় অভিযুক্ত মেহুল চৌকসিকে ফেরত আনার জন্য পাঠিয়েছে বলে অনুমানো করা হচ্ছে। শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী অভিযুক্ত মেহুল চৌকসি ডোমিনিকার জেলে বন্দী রয়েছে ।

ভারতের একটি ব্যাক্তিগত বিমান যে মেহুল চৌকসিকে ফেরত আনার জন্য নথিপত্র পাঠিয়েছে সে সম্পর্কে রবিবার একটি রেডিও শো-তে মন্তব্য করতে শোনা গেছে ডোমিনিকার প্রধানমন্ত্রী গ্যাস্টন ব্রাউনকে। এই বিষয়ে ভারতীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই ও ইডি জানিয়েছে পিএনবি স্ক্যাম সংক্রান্ত মামলার নথিপত্র পাঠানো হয়েছে ডোমিনিকায়। বিদেশমন্ত্রী এই মামলা নিয়ে ইতিমধ্যেই সেখানকার সরকারের সঙ্গে কথা বলা শুরু করেছেন।

গত ২৫ শে মে ক্যারাবিয়ান দ্বীপের ডোমিনিকায় বেআইনি ভাবে প্রবেশের অভিযোগে সেখনকার পুলিশ গ্রেফতার করে চৌকসিকে।
গ্রেফতার হবার পর মেহুল চৌকসির আইনজীবী তাকে ভারতে প্রত্যার্পনের বিরোধিতা করে বলেন যেহেতু চৌকসি ভারতের নাগরিক নন তাই তাকে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া যাবে না।

প্রসঙ্গত, হীরা ব্যবসায়ী মেহুল চৌকসি এবং তার স্বর্ন ব্যবসায়ী ভাইপো নীরব মোদী ২০১৮ সালে পাঞ্জাব ন্যাশানাল ব্যাঙ্কের অর্থ তছরুপের ঘটনায় অভিযুক্ত হয়। এই মামলা সামনে আসার আগেই তারা ভারত ছেড়ে পালিয়ে যায়। পরে ২০১৯ সালে লন্ডনে নীরব মোদী গ্রেফতার হয় এবং মেহুল চৌকসি অ্যান্টিগুয়ার-বারমুডার নাগরিকত্ব নেয় ২০১৭ সালে, এই মামলা সামনে আসার ঠিক পূর্বে।

ভারত সরকারের পক্ষ থেকে ডোমিনিকার সরকারকে আবেদন করা হয়েছে, যে চৌকসিকে ভারতের পলাতক নাগরিক হিসাবে বিবেচনা করে তাকে ভারতে প্রত্যার্পন করা হোক। চৌকসিকে বন্দি রাখা আইননত সঠিক কিনা, তা নিয়ে আগামী বুধবার সেখানে মামলার শুনানি হবে।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here