পূর্ববঙ্গে হিন্দুদের স্মৃতি (৭৭) সোনারগাঁও এর বড় সরদার বাড়ি

আমাদের ভারত৷ ১০ মার্চ: প্রায় ছয়’শ বছরের পুরোনো ইতিহাস ও ঐতিহ্যের ধারক হিসেবে পরিচিত নারাণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের ঐতিহাসিক বড় সরদার বাড়ি। বাংলা সর্বশেষ ১৩৩০ সনে সংস্কার করা হয়। ১৯৮১ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে ঐতিহাসিক এই ভবনটিকে সরকার লোক ও কারুশিল্প জাদুঘরে রূপান্তরিত করে।

প্রায় ২৭ হাজার ৪০০ বর্গফুট আয়তনের এই ভবনটির নিচতলায় ৪৭টি ও দ্বিতীয় তলায় ৩৮টি কক্ষ রয়েছে। এটি নতুন ভাবে পুনরায় সংস্কার করা হয়। ঊনবিংশ শতাব্দীর শেষ দিকে এসে আলোচ্য ভবনের তিনটি অংশকে একত্রিত করে সংস্কার সম্প্রসারণ কাজ পরিচালিত হয়। প্রায় ৬০০ বছরের পুরনো ভবনের মালিকানা পরিবর্তনের পর ভবন মালিকের ইচ্ছানুযায়ী কিছু অলঙ্করণ কাজ করা হয়েছে।

ঐতিহাসিক এই ভবনটির প্রধান ফটকের লেখা থেকে জানা যায়। ১৩০৮ সাল শ্রীশ্রী যুক্ত গোপীনাথ জিউর শ্রীশ্রী চরণ ভরসা। সর্বশেষ ১৩৩০ সালে ভবনটির সংস্কার করেছিলেন। এর প্রমাণ সংস্কার কাজ শেষে ভবনের দেয়ালে উৎকীর্ণ লিপিতে রয়েছে। বাংলায় সুলতানি আমলের পথ ধরে মুঘল আর সর্বশেষ ব্রিটিশ রাজত্বের ইতিহাস-ঐতিহ্যের ধারক বড় সরদারবাড়ি নির্মাণ করেছিলেন বড় সরদার নামে একজন ব্যবসায়ী। তখন থেকেই এই ভবনটির পরিচিতি বড় সরদারবাড়ি হিসেবে।

ভবনটি নির্মিত হয়েছে ছোট ছোট পাতলা জাফরি ইট, বারান্দা ঘেরা ওঠান, ত্রিভূজাকৃতির দেয়াল, নিচে অষ্টভূজ পিলার যার দেয়ালের পরতে পরতে সূক্ষ্ম কারুকাজ, চুনসুরকির আস্তরণে দাঁড়িয়ে আছে ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে।

ছবিঃ ওপরে,সংস্কারের পরে বর্তমান বড় সরদার বাড়ি।
ছবিঃ নিচে, ১৯৭৫ সালে বড় সরদার বাড়ি।
সূত্র— পুরনো কলকাতার গল্প ফেসবুক গ্রুপ।
মহম্মদ কাইজার হোসেন।
সংকলন— অশোক সেনগুপ্ত।

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here