সিসিটিভি ক্যামেরায় মোড়া সাংসদ অর্জুন সিংয়ের বাড়িতে ফের বোমা ছুড়ল দুষ্কৃতীরা, আতঙ্ক এলাকায়

প্রতীতি ঘোষ, আমাদের ভারত, ব্যারাকপুর, ১৪ সেপ্টেম্বর: সিসিটিভি ক্যামেরায় সাংসদের বাড়ি মুড়ে ফেলা হলেও রেহাই মিললো না৷ মঙ্গলবার সকালে ফের বোমা পড়ল ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের বাড়িতে৷
৮ তারিখের পর আবার সাংসদ অর্জুন সিং এর বাড়িতে বোমা বাজির ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ল জগদ্দলে।

৮ তারিখ অর্জুন সিংয়ের বাস ভবন মজদুর ভবনের সামনের গেটে বোমা মেরেছিল দুষ্কৃতীরা। আর মঙ্গলবার সকালে বাড়ির পিছনে বোমা মারল দুষ্কৃতীরা। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সাংসদের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন ওঠায় ঘটনাস্থলে এলো বোম স্কোয়াড ও ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের উচ্চ পদস্থ আধিকারিক।

জানাগেছে, অর্জুন সিং এর বাড়ির পিছন দিকে পরপর দু’টি বোমা বিস্ফোরণ হয় মঙ্গলবার সকালে। বোমার আওয়াজে কেপে ওঠে এলাকা। ফের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে এলাকাবাসীর মধ্যে। সাংসদের নিরাপত্তা বাড়ানোর জন্য ইতিমধ্যেই ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের তরফ থেকে সাংসদের বাড়ি ও তার চারপাশ সিসিটিভি ক্যামেরার নিরাপত্তাতে মুড়ে ফেলা হয়েছে। তার পরেও এই বোমা বাজির ঘটনায় কার্যত ভয়ের পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে এলাকাবাসীর মধ্যে।

বাড়ির চতুর্দিকে পুলিশের সিসিটিভি ক্যামেরার ঘেরাটোপের মধ্যেও কিভাবে আবারো বোমা ফাটলো তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। এই বোমাবাজির খবর পুলিশের কাছে যেতেই ঘটনাস্থলে আসে জগদ্দল থানার পুলিশ ও আধিকারিকরা। তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ প্রশাসন, সেই সঙ্গে সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা হয়। বেলা বাড়তেই তদন্তের গতি প্রকৃতি দেখতে ঘটনাস্থলে আসেন ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের ডিসি নর্থ শ্রীহরি পান্ডে ও বোম্ব স্কোয়াডের একটি দল। তারা দীর্ঘক্ষণ বোমার খোঁজে সাংসদের বাড়ির আশেপাশে তল্লাশি চালান।

তবে বারবার বাড়ি লক্ষ্য করে বোমা বাজির ঘটনায় ক্ষুব্ধ ও আতঙ্কিত সাংসদ অর্জুন সিং এর ছেলে তথা ভাটপাড়ার বিধায়ক পবন সিং বলেন, “সবাই জানে আমার বাবা
ভবানীপুর উপ নির্বাচনে গুরুত্ব পূর্ণ দায়িত্ব পেয়েছে। আর তৃণমূল আমার বাবাকে আর আমাদের ওই দায়িত্ব থেকে সরাতে চাইছেন। তাই বারবার এই ধরনের বোমাবাজির ঘটনা ঘটাচ্ছে। যাতে সাংসদ অর্জুন সিং ভবানীপুরে সময় দিতে না পারেন। বাড়ির সমস্যা নিয়ে ব্যাস্ত হয়ে যায়। এটা জন্য তৃণমূল নানা ধরনের প্ল্যান করছে। রাজ্য পুলিশ কোনও কাজ করছে না। সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানো হলেও কোনও ফল চোখে পড়ছে না। পুলিশ প্রশাসন ঠিক করে কাজ করলে কি আজ আবার বোমাবাজি হত। আমার সাথে ও সাংসদের সাথে এনআইএ র কথা হয়েছে। ওনারা এই কেসের তদন্তভার নিয়েছেন। আমাদের নিরাপত্তার নিয়ে প্রশ্ন উঠছে এবার।” এদিন ডিসি নর্থ শ্রীহরি পান্ডে ঘটনাস্থলে এসে বলেন, “আমরা তদন্ত শুরু করেছি, সিসিটিভি ফুটেজগুলি ভালো করে দেখা হচ্ছে।”

আপনাদের মতামত জানান

Please enter your comment!
Please enter your name here